তাকিয়া রোডে যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে মাইক্রোবাস ভাংচুর

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জানুয়ারি ৯, ২০২০
তাকিয়া রোডে যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে মাইক্রোবাস ভাংচুর

নুরুল হুদা মিয়াজী রাসেল

ফেনী শহর প্রতিনিধি :

ফেনী শহরের তাকিয়া রোডে বুধবার সন্ধ্যায় যুবলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ হয়েছে। হামলা-পাল্টা হামলায় মাইক্রোবাস ভাংচুর করা হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্র জানায়, আধিপত্য বিরোধ নিয়ে জেরে পৌর যুবলীগের সহ-সভাপতি রাকিব তাহান ও যুগ্ম-সম্পাদক রেজাউল করিম নদিমের সাথে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্ধ চলে আসছে। এনিয়ে দুটি গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। দু’জনই শহরের রামপুর এলাকার সওদাগর বাড়ির বাসিন্দা। বুধবার সন্ধ্যায় দুটি গ্রুপ তাকিয়া রোডের নাদিয়া হোটেলে পৃথকভাবে অবস্থান নেয়। হঠাৎ রাকিব সমর্থক হিসেবে পরিচিত ১৮নং ওয়ার্ডের সাবেক সাধারন সম্পাদক ইমরান মাছুমকে মারধর করলে তারাও চড়াও হলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। একপর্যায়ে রাকিবের সমর্থকরা সৈয়দ বাড়ি রোডে অবস্থানরত নাদিমের মাইক্রোবাস ভাংচুর করে। পেছন থেকে ধাওয়া করে মাছুমকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। মুহুর্তেই এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানাজানি হলে পৌর যুবলীগের নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
রেজাউল করিম নাদিম জানান, দীর্ঘদিন রাজনীতিতে না থেকে মাছুম এলাকায় অবস্থান করায় কর্মীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে তাকে মারধর করে। এর জেরে মাছুম বিএনপি নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় গাড়ী ভাংচুর করে। বিষয়টি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপিকে অবগত করা হবে।
রাকিব তাহানের বক্তব্য জানতে একাধিকবার মোবাইল ফোনে চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।
পৌর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন বাবলু জানান, দু’জনের মধ্যে ভুলবোঝাবুঝি হয়েছে। উভয়কে নিয়ে বৈঠকে বসে মিমাংসা করা হবে।
ফেনী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম জানান, বিষয়টি শুনেছেন। কেউ কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

Sharing is caring!