ভোলায় নবীকে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের সমাবেশ

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১
ভোলায় নবীকে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ ১৬ই সেপ্টেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় ভোলা হাটখোলা মসজিদ চত্বরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা জেলা উত্তর শাখার উদ্যোগে ভোলা জেলা হিন্দু সম্প্রদায়ের পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি গৌরাঙ্গ দে হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি মূলক বক্তব্য প্রদান ও অবমাননায় করার প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মা-ও আতাউর রহমান মোমতাজী ও সেক্রেটারি মা-ও তরিকুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন এর কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি মা-ও ওবায়েদ বিন মোস্তফা।

উক্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন-
ভোলা জেলা হিন্দু পরিষদের পূজা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি গৌরাঙ্গ দে তার ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে বিশ্বনবীর শানে যে আপত্তিকর শব্দ ব্যবহার করেছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার পায়তারা চলছে। তার ফেসবুক আইডিতে জৈনক ব্যাক্তির সাথে নবীর শানে যে কথোপকথন হয়েছে এ ব্যাপারে হিন্দু পরিষদের পূজা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি গৌরাঙ্গ দে বলে তার আইডি না-কি হ্যাক হয়েছে এই মর্মে তিনি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে। বক্তারা বলেন, এমন কটুক্তি মূলক বক্তব্য মেনে নিতে পারছিনা,এইসমস্ত বক্তব্য অবশ্যই আপত্তিকর ও দুঃখজনক তাই আমরা চাই প্রশাসন সঠিক তদন্তের মাধ্যমে অপরাধী কে তার আপত্তিকর বক্তব্যের জন্য অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি ।

নেতৃদ্বয় বলেন –
শুধু তাই নয়, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেউ যেন কোন উস্কানি না দেয়, সবাইকে শান্ত ও সর্তক থাকার অনুরোধ জানিয়ে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সবার প্রতি অনুরোধ করা হয়। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ গণমানুষের অধিকার আদায়ে রাজনীতি করছে। আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সকল ধর্মের মানুষের সহাবস্থানে বিশ্বাসী। যেকোনো ধরণের উগ্রতা ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নস্যাৎ করার যেকোনো অপচেষ্টাকে ইসলামী আন্দোলন ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করে।

নেতৃদ্বয় আরোও বলেন-
দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের মাধ্যেমে যারা নতুন সঙ্কট তৈরি করতে চায় নবীর শানে একরকম উগ্র এবং বেয়াদবি মূলক বক্তব্য দাতারা মূলত ক্ষমতাশীনদের দোসর। আমরাও প্রশাসনকে বলতে চাই যে বা যারা উগ্রতা ছড়িয়ে নাশকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা করেছে তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। ভবিষ্যতে এমন উস্কানিমূলক ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে এ ব্যাপারে প্রশাসনের কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে হবে।

বক্তারা আরও বলেন-
এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কোন উস্কানিতে না জড়িয়ে সতর্কতামূলক অবস্থান নিশ্চিত করে নাশকতাকে পরিহার করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে দলীয় নেতাকর্মী, সমর্থক, ধর্মপ্রাণ জনতা এবং ভোলা বাসীর প্রতি আহ্বান জানান। বক্তারা ঘটনার নাজুকতা উপলব্ধি করে সঠিক উদ্যোগ গ্রহণ করায় জেলা হিন্দু পরিষদের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বলেন দেশের স্বার্থে ভবিষ্যতেও যেন কোন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সংঘটিত নাহয় সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান।

উক্ত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা জেলা উত্তর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মা-ও আবদুল মমিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাও ইউসুফ আদনান, সদর থানার সেক্রেটারি মা-ও আব্দুর রব,বোরহানউদ্দিন থানা শাখার সভাপতি মা-ও মাহমুদুল হাসান, জেলা শিক্ষক ফোরামের সভাপতি মা-ও আব্দুর রহমান চৌধুরী, জেলা মুসলিম ঐক্য পরিষদের সভাপতি মা-ও মোবাশ্বেরুল ইসলাম নাঈম, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ভোলা জেলা উত্তর শাখার সভাপতি এইচ এম ইসমাইল হোসেনসহ প্রমূখ।

Sharing is caring!