সুনামগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে পরিকল্পনামন্ত্রীর মতবিনিময়

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯
সুনামগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে পরিকল্পনামন্ত্রীর মতবিনিময়

মোঃ ওমর ফারুক
সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকট আরো কিছুদিন থাকবে। তবে এর সমাধান অবশ্যই হবে। আমরা সভ্য জাতি, মানবিক জাতি। রোহিঙ্গারা অত্যাচারিত, লাঞ্ছিত ও অবহেলিত হয়ে এসেছে। আমরা অন্য কোনো দেশের মানুষকে অপমানিত করতে চাই না। বিপদে পরে রোহিঙ্গারা আমাদের দেশে আশ্রয় নিয়েছে। মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন, খাবার দিয়েছেন, আরো খাবার দিবেন। আমাদের সরকারের সাথে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের ভালো সম্পর্ক আছে এবং বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের তাদের দেশে (মিয়ানমার) ফিরিয়ে নেয়ার জন্য প্রতিনিয়িত চাপ বাড়ছে। শেষ পর্যন্ত মিয়ানমার তাদের নাগরিকদেরকে সসম্মান ও নিরাপদে নিজ ভিটায় ফিরে নিয়ে যাবে।
শনিবার সকালে সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব মন্তব্য করেন। মতিবিনিময় সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী সুনামগঞ্জ ও দেশের উন্নয়নে সহযোগিতা চেয়ে বলেন, আগামী সংসদ অধিবেশনেই সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন পাস হবে। সুনামগঞ্জে এই সরকারের সময়কালেই রেল লাইন আসবে। সুনামগঞ্জে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজের একাডেমিক ভবনের কাজ শুরু হয়েছে। সুনামগঞ্জ-দিরাই-শাল্লা-আজমিরিগঞ্জ সড়কও হবে। সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়ক চার লেনে উন্নীত করা হবে। সুনামগঞ্জ- নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ সড়ক হবে। আরও অনেক উন্নয়ন প্রকল্পের প্রাথমিক কাজ শুরু হয়েছে।। গণমাধ্যমকর্মীরা এসব উন্নয়ন কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করতে নিশ্চয়ই তাঁদের লিখনির মাধ্যমে আমাদের সহযোগিতা করবেন।
মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি সমকাল, এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি পঙ্কজ দে। প্রেসক্লাবের সহসভাপতি একাত্তর টিভি দৈনিক কারেরকণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি শামস শামীম’এর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন-
সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, চ্যানেল আই’ ও দৈনিক মানবজমিন এর জেলা প্রতিনিধি ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক একেএম মহিম, প্রেসক্লাবের কার্যকরি সদস্য ও সুনামগঞ্জ রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার খলিল রহমান প্রমুখ।

Sharing is caring!