সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নগ্নসমালোচনা করায় ইউটিউবার সুফিয়ানকে ফেসবুকে তুলোধুনা

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১
সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নগ্নসমালোচনা করায় ইউটিউবার সুফিয়ানকে ফেসবুকে তুলোধুনা

আওয়ার বাংলাদেশ নিউজ 

হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী। দেশের আলোচিত ও জনপ্রিয় একজন বক্তা, আলেম সমাজের বাইরে সাধারণ মানুষের মাঝেও রয়েছে তার বেশ জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতা। দেশে জেনারেল শিক্ষায়, রিকশাচালক ও কৃষকসহ সর্বশ্রেণীর কাছে হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর মতো সমাদৃত দ্বিতীয় কোন বক্তা নেই।

তবে হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর এই জনপ্রিয়তার কারণে যথেষ্ট কষ্টে আছে বিকলাঙ্গ হিংসুটে মহল।
তারা বিভিন্ন সময় ননইস্যুকে ইস্যু বানিয়ে হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নগ্ন সমালোচনায় মেতে উঠে। আর এর জন্য তারা সস্তামাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবকে ব্যবহার করে থাকে।

সাম্প্রতিক সময়ে এহসান সোসাইটির অর্থ আত্মসাতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেই হিংসুটে মহল হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নগ্ন সমালোচনায় লেগে গেছে।
২০১৮সালে পিরোজপুরে এহসান সোসাইটির পরিচালক রাগিবের পরিচালনাধীন মাদ্রাসার মাহফিলে গিয়ে সংস্থাটির পক্ষে বক্তব্য দেন হাফিজুর সিদ্দিক, মুফতি মিজানুর রহমান সাঈদ, মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী, মুফতি ইলিয়াছুর রহমান জিহাদি, মাওলানা আবদুল খালেক শরিয়তপুরি, মুফতী শামসুদ্দোহা আশরাফী, হাটহাজারী মাদ্রাসার শাইখুল হাদিস আল্লামা শায়েখ আহমদ, শোয়াইব আহমেদ আশ্রাফী, মাওলানা নাসির উদ্দিন যুক্তিবাদীসহ দেশের অনেক বক্তা।

এতদসত্বেও এই হিংসুটে বিকলাঙ্গ শ্রেণি শুধুমাত্র হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর সমালোচনায় আদাজল খেয়ে মাঠে নেমেছে।
কোন ব্যক্তি বা সংস্থার ভবিষ্যতের কোন পদস্খলনের জন্য অতিতের সাপোর্টাররা অপরাধী সাব্যস্ত হওয়ার সিস্টেম যদি আবশ্যকীয় ধরে নেওয়া হয়, তবে এদেশে কেউ কোন বিষয়ে মুখ খোলার সুযোগ থাকে না। তাই এহসান সোসাইটির ভালো সময়ে তার প্রশংসা করায় হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীসহ অন্য আলেমগণ কিছু দোষী হতে পারেন না।
তবে, এঘটনা থেকে আলেমগণ বায়ানের ময়দানে আরো সতর্ক হওয়ার সবক নেওয়া উচিত।

হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর সমালোচকদের মধ্যে ইউটিউবার সুফিয়ান বিন এনামের ভিডিওটি অনেক হিংসাত্মক মনে হয়েছে।
তার হিংসাত্মক এই ভিডিও প্রকাশ হওয়ার পর এর প্রতিবাদে সরব হয়েছেন ফেসবুক ইউজাররা।
তার ভিডিওটির কমেন্ট বক্সে ভিডিওটির সাপোর্টার হিসেবে দুয়েকজন পাওয়া গেলেও সর্বশেষ রাত ১০টা পর্যন্ত ৫হাজার ২০০কমেন্টের মধ্যে অল্প কয়েকটি কমেন্ট ছাড়া বাকিসব হচ্ছে তাকে গালাগাল ও প্রতিবাদের।
এই ঘটনায় অনেকেই তার ছবিতে ক্রসচিহ্ন দিয়ে নিজ ওয়ালে তাকে বয়কটের ডাক দিচ্ছে।
তার ফেইজগুলো আনলাইক ও আনফলো করার তৎপরতাও দেখা যাচ্ছে।

এই ঘটনার পর সুফিয়ান বিন এনামের প্রতিপক্ষকে গালাগাল করার একটা ভয়েস প্রকাশ হয়েছে।
ভাইরাল হওয়া ৩মিনিট ৩৫সেকেন্ড এর সেই ভয়েস রেকর্ডে অপরপ্রান্তের একজনকে শালারপুত, শুয়োরের বাচ্ছা, কুত্তার বাচ্ছাসহ এরকম কিছু অকথ্য ভাষায় গালাগাল করছে সুফিয়ান বিন এনাম। ভয়েস রেকর্ডটি দেখিয়ে অনেকেই তাকে গালিবাজ সেফুদার সাথে তুলনা করছে।

সর্বপরি এই ঘটনায় হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর হিংসুটে বিরুধীদের খপ্পরে পড়ে ইউটিউবার সুফিয়ান ফেসবুকে অনেকটা তুলোধুনোর শিকার।

Sharing is caring!