কোরআন নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে শরীয়তপুরে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২১
কোরআন নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে শরীয়তপুরে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

শরীয়তপুরের জাজিরায় কোরআন, ইসলাম ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করার প্রতিবাদে উপজেলার জয়নগর জুলমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক তপন চন্দ্র বাড়ৈর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আজ সোমবার ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ শরীয়তপুর শাখা বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছে।

গতকাল সোমবার বেলা ১২টায় জেলা শহরের পালং উত্তর বাজার জামে মসজিদের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে ইসলামী আন্দোলন শরীয়তপুর। এ সময় মিছিলটি জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
ইসলামী আন্দোলন শরীয়তপুর জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সালাম শিকারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলনের শরীয়তপুর জেলা মুজাহিদ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা শওকত আলী, সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার আব্দুর শাকুর খান, ইসলামী আন্দোলনের সহ-সভাপিত মুফতি তোফায়েল আহম্মেদ কাসেমী, উপদেষ্টা হাফেজ মাওলানা কেরামত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আব্দুল্লাহ ইউনুছ, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের সভাপতি মো. আয়েত আলী, শরীয়তপুর জজকোর্ট জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুর রহমান জালালী।
সমাবেশ শেষে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ সময় সমাবেশে বক্তারা কোরআন, ইসলাম ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তিকারী শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
উল্লেখ্য, জাজিরা থানার জয়নগর জুলমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক তপন চন্দ্র বাড়ৈ গত ৬ এপ্রিল বিজ্ঞান শাখার রসায়ন ক্লাস নিতে গিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, কোরআন বাস্তব সম্মত নয়, কিন্ত বিজ্ঞান বাস্তব সম্মত। কোরআন কিছু দিতে পারে না বলে মুসলমানরা অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল। এ কারণে বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারীরা অর্থনৈতিক ভাবে সবল। বৌদ্ধ ধর্মেনারীদের গুরুত্ব বেশী। কোরআন নারীদের অধিকার দিতে পারে না। মুসলমানরা নামাজ পড়ে শরীরের চর্বি কমানো এবং বেয়ামের জন্য। মানুষ প্রকৃতির নিয়মে জন্মে এবং প্রকৃতির নিয়মে মারা যায় বলে কোরআন, ইসলাম ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে এ ধরনের কটুক্তি করেন তিনি। পরে বুধবার বিষয়টি নিয়ে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা ছাত্র-ছাত্রীসহ স্থানীয় হাজার হাজার লোকজন বিক্ষোভ আন্দোলন করলে জাজিরা থানা পুলিশ
ঘটনাস্থল থেকে উক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে।

Sharing is caring!