হাফিজুর রহমান ও মামুনুল হককে মুখোমুখি করে স্বার্থসিদ্ধি করতে চাচ্ছে কওমি বিরুধীরা

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত নভেম্বর ৭, ২০২০
হাফিজুর রহমান ও মামুনুল হককে মুখোমুখি করে স্বার্থসিদ্ধি করতে চাচ্ছে কওমি বিরুধীরা

আওয়ার বাংলাদেশ 

আল্লামা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী দেশের জনপ্রিয় একজন ওয়ায়েজ। যার নাম শুনে মানুষ পঙ্গপালের ন্যায় ছুটে আসে, যাকে একনজর দেখার জন্য লাখো মানুষ দূরদূরান্ত থেকে খোলা মাঠে অপেক্ষা করে, চায়ের দোকানের টেলিভিশনগুলোতে অশ্লীল সিনেমার পরিবর্তে যেই হাফিজুর রহমান সিদ্দিকীর বায়ান চলে। যার ওয়াজে হাজারো মানুষের মুখে দাড়ি এসেছে, মাথায় টুপি উঠেছে, মসজিদ মুখি হয়েছে অনেক বেনামাজি। এক কথায় আল্লামা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী এমন এক ব্যক্তিত্ব, যার বায়ানের চুম্বকার্শনে দেশের সিমানা পেরিয়ে প্রবাসেও অনেক মানুষের আমলী জীবনে আমূল পরিবর্তন এসেছে।

আল্লামা মামুনুল হক দেশের তরুণ ওলামায়ে কেরামের মাঝে চেতনা জাগানো এক বিশাল প্রদীপ, যার বায়ান শুনে যুবকরা শাহাদাতের তামান্না লালন করেন, বাতিল ও কুফরি শক্তির মোকাবিলায় যুবসমাজ যার বায়ান থেকে বীরত্বের সবক পান, দেশ ও বিদেশে যিনি প্রশংসিত।

উলামায়ে দেওবন্দ তথা কওমি আলেম সমাজের এই দুই মহান ব্যক্তিত্বের মাঝে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। তারা পারস্পরিক ভাতৃত্ববোধ রক্ষা করে চলেন, মিডিয়া জগতে এর অনেক দৃষ্টান্ত আছে। অনেক মাহফিলে তারা দুজন একসাথে বায়ান করেন।
সাম্প্রতিক সময়ে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, ফেসবুকে কিছু নামি-বেনামি আইডি থেকে এই দুই ব্যক্তির মাঝে পারস্পরিক দ্বন্ধের কথা উল্লেখ করে, পক্ষে-বিপক্ষে লিখে তাদেরকে পারস্পরিক মুখোমুখি দাড় করানোর অপচেষ্টা করছে একটি চিহ্নিত কুচক্রী মহল। মূলত এরা ওলামায়ে দেওবন্দ তথা কওমি ঘরানার কেউ নয়, এরা কওমি আলেমদের চিরশত্রু মুখোশধারী স্বার্থান্বেষীগোষ্ঠী।

দিনকয়েক আগে এদের এক বুড়ো বক্তার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর কওমি মাদ্রাসা ও কওমি ওয়ায়েজদের নিয়ে চরম মিথ্যাচারের কারণে সেই বুড়ো কওমি ঘরানার পাশাপাশি নিজেদের আঙ্গিনায়ও চরম সমালোচিত হয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে যে, সেই বুড়োকে সমালোচনার হাত থেকে বাঁচাতে ও আলোচনার মোড় অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে কওমি বিরুধীদের সেই পক্ষই উলামায়ে দেওবন্দের এই দুই ব্যক্তিত্বের মাঝে বিভেদের কল্পকাহিনি প্রচার করে চলছে।

কাজেই, সচেতন মহলকে এসব ভুয়া ও অযথা বিতর্ক থেকে বিরত থাকতে হবে। অন্যথায় সেই কওমি বিরুধী হিংসুকরা তাদের অপচেষ্টায় সফল হয়ে যাবে। জাতির অপূরণীয় ক্ষতি সাধিত হবে।

Sharing is caring!