সা’দ সাকীর কবিতা: ইমাম বেচারা

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০
সা’দ সাকীর কবিতা: ইমাম বেচারা
কবিতা: ইমাম বেচারা
মুহাম্মাদ সা’দ সাকী
এই করেননি, ঐ করেননি,
নামাজ শেষে দোআ করেননি।
ফ্যান চলে কেন তরিৎগতি?
বলে দিলাম–থাকবে না আর ইমামতি।
সবার যখন ছুটি আছে,
কেউ না থাকুক ইমাম আছে!
চাকরী করেন পরের বাড়ি,
দাওয়াত জুটে কাড়ি কাড়ি,
আর লাগে কী করতে জগৎ-সংসারি!
ট্যাঙ্কি কেন উপচে পড়ে?
বাল্বটা কেন দিনে জ্বলে?
সিজদা দিলে কপালে কেন ধুলো লাগে?
গেইট পেরুলে ফকির কেন ভিক্ষে মাগে?
অমুক নেতা, তমুক খানঁ দোআ চাইলে
করতে কেন বিবেক বাঁধে?
কুলখানিতে দোআটা এবার জমল না যে?
ফতোয়াটা আমার মতো হল না যে?
হাঁটা-চলার কথাটাও ছাড়বে না কেউ,
হারাম কাজে মিলাদ করেও,
করবে কেন ইমামতি?
দাও উড়িয়ে ইমাম মিয়ার সকল গতি!
ত্রাণ পেয়েছে গরিব-ফকির,
ইমাম পায় না–কেউ বুঝে না–জপছে-জিকির,
বেতন আছে হাজার পাঁচেক,
জনপ্রতি দেয় টাকা শতেক।
মুখ ফুটে না ইমাম মিয়ার,
আত্মসম্মান আছে না তার!
সরকার দেয় না বেতন-ভাতা,
ইমাম বলে কর্তাদেরও চোখ পড়ে না!
কেউ দেখে না, কেউ দেখে না,
নির্জনবেলায় অশ্রুরা কেউ বাঁধ মানে না।
তবু কারো ধমক-ধামক কম পড়ে না!
সেদিনের সে যুবকটাও আজ কম বলে না।

Sharing is caring!