নারায়ণগঞ্জ দূর্ঘটনায় আহত-নিহত পরিবারের পাশে ইশা ছাত্র আন্দোলন

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৬, ২০২০
নারায়ণগঞ্জ দূর্ঘটনায় আহত-নিহত পরিবারের পাশে ইশা ছাত্র আন্দোলন

হাফেজ শেখ ফরিদ (বিশেষ প্রতিনিধি)

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদের নিচ দিয়ে নেয়া গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে শুক্রবার রাতে এশার নামাজের সময় বিকট শব্দে মসজিদে পর পর ছয়টি এসিই বিষ্ফোরিত হয়। এতে আহত-নিহত পরিবারগুলোর খোঁজখবর নিতে আজ ৫ ই সেপ্টেম্বর ২০২০, রোজ শনিবার বিকেলে ঘটনাস্থল এবং আহত-নিহতদের বাড়ি গিয়েছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি এম. হাছিবুল ইসলাম সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন কালে এম. হাছিবুল ইসলাম বলেন, লাইনের লিকেজ থেকেই গ্যাস চেম্বারে পরিণত হয় মসজিদটি। দুর্ঘটনার মূল কারণ এটাই। একে নিতান্তই দূর্ঘটনা বলে মেনে নেয়া যায় না। এটি তিতাসের দায়িত্বহীনতা, অবজ্ঞা এবং অবহেলারই প্রতিফলন।

তিনি আরো বলেন, তিতাস গ্যাসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারদের আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় তিতাস গ্যাস কোম্পানির ওপর জনরোষের বহিঃপ্রকাশে যে কোন পরিস্থিতির জন্য সরকারকে দায় নিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ৯ মাস আগেই গ্যাস লাইন লিকেজ মেরামতের জন্য লিখিতভাবে অভিযোগ জানানো হলেও ৫০ হাজার টাকা ঘুষ না দেয়ায় কাজ করেনি তিতাস। দূর্নীতি অনিয়ম যেন এক রুটিন ওয়ার্কে পরিণত হয়েছে। দেশের আপামর জনসাধারণকে এই নব্য ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে অধিকার আদায় করতে হবে।

দুর্ঘটনায় আহত পরিবারগুলোতে ৫ লাখ এবং নিহতের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে তিতাসকে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনের মধ্যস্থতায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে উক্ত ক্ষতিপূরণ আদায় করতে হবে।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রিয়াদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইউসুফ আহমাদ মানসুর, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক এম এম শোয়াইব, অর্থ ও কল্যাণ সম্পাদক মুহাম্মদ ইব্রাহিম হোসাইন , স্কুল সম্পাদক মাহমুদুল হাসান , মজলিসে শূরা সদস্য আলামিন সিদ্দিকী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি এম. হাছিবুল ইসলামের নির্দেশনায় গতকাল শুক্রবার রাত ১১টায় আহতদের সার্বিক খোজ খবর নিতে শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে গিয়েছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও রাত থেকেই সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি স্বেচ্ছাসেবক টীম শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে স্বেচ্ছাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

Sharing is caring!