শেরপুরে নিজের মেয়েকে ধর্ষনের দায়ে মায়ের মামলায় বাবা কারাগারে

আওয়ার বাংলাদেশ ২৪
প্রকাশিত নভেম্বর ১, ২০২০
শেরপুরে নিজের মেয়েকে ধর্ষনের দায়ে মায়ের মামলায় বাবা কারাগারে

মোঃ রাকিব মাহমুদ ডাবলু, গাবতলী বগুড়া -প্রতিনিধি:

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া বস্তি এলাকায় নিজ মেয়েকে (১২) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিজের শিশু কন্যাকে ধর্ষণের ঘটনায় আব্দুল খালেক (৪৫) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে শেরপুর থানা-পুলিশ। এ ঘটনায় ওই শিশু কন্যার মা লাভলী ওরফে লাবনী খাতুন নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ এনে শুক্রবার (৩০অক্টোবর) রাতে স্বামী আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

তবে ঘটনাটি ২০ অক্টোবর গভীর রাতে বগুড়ার শেরপুরের বাগড়া বস্তি এলাকায় ঘটেছে। জানা গেছে, উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া বস্তি এলাকার মৃত আয়েজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুল খালেক ও তার ১ম স্ত্রী লাভলী ওরফে লাবনী খাতুনের ঘরে প্রায় ১২ বছর আগে জন্ম নেয় শিশু কন্যা লাকী খাতুন। এরপর লাবনী খাতুন তালাকপ্রাপ্ত হয় এবং আব্দুল খালেক পুনরায় ঝর্ণা খাতুনকে বিয়ে করে ওই শিশুকন্যাকে নিয়ে শহরতলীর দারকিপাড়াস্থ একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতো। বসবাসের একপর্যয়ে পিতা আব্দুল খালেক গত ২০ অক্টোবর রাতে তার স্ত্রী ঝর্ণা খাতুন চাউল কলে কাজ করতে গেলে বাড়ীতে কেউ না থাকার সুবাদে বিকৃতরুচির পিতা আব্দুল খালেক তার নিজের ঔরষজাত সন্তান ১২ বছর বয়সী শিশুকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে এবং এঘটনা কাউকে না বলতে ভয়ভীতি দেখায়।

ধর্ষিতা ওই শিশু কন্যা উপজেলা সদর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী বলে তার পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে। পরবর্তীতে বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন ধর্ষক পিতা আব্দুল খালেককে আটক করে তার স্বীকারোক্তি নেয় এবং থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় ওই শিশু কন্যার মা লাভলী ওরফে লাবনী খাতুন বাদি হয়ে নিজ মেয়েকে ধর্ষণ করায় তার প্রাক্তন স্বামী আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এ প্রসঙ্গে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শহিদুল ইসলাম চাঁদনী বাজারকে বলেন, পিতা কর্তৃক কন্যাকে ধর্ষনের দায়ে মামলা দায়ের হয়েছে এবং ধর্ষককে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Sharing is caring!