খুলনার কয়রা উপজেলা হতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আসামি আটক

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০
খুলনার কয়রা উপজেলা হতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আসামি আটক

খুলনার কয়রা উপজেলার গোবরা এলাকা হতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ ০৫ (পাঁচ) ডাকাত’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬
র‌্যাব তার প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই সমাজে বিশৃংখলা সৃষ্টিকারী, জলদস্যু, অস্ত্র ব্যবসায়ী, ডাকাত, কালোবাজারী, মানব পাচারকারী, মাদক ব্যবসায়ী, জঙ্গী ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় খুলনা জেলার কয়রা থানাধীন এলাকায় সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে বিশেষ অপারেশন ডিউটি পরিচালনাকালীন অদ্য ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং তারিখ আনুমানিক রাত ০২.৩০ ঘটিকার সময় গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, খুলনার জেলার কয়রা থানাধীন গোবরা গ্রামে ৮/৯ জন লোক ডাকাতি কার্যক্রম পরিচালনার প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। উক্ত সংবাদ প্রাপ্ত হয়ে ঘটনার সত্যতা ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্দেশ্যে র‌্যাব-৬, (স্পেশাল কোম্পানী) খুলনা এর একটি চৌকস বিশেষ আভিযানিক দল খুলনার জেলার কয়রা থানাধীন গোবরা গ্রামস্থ্য জনৈক মোঃ শামসুর রহমান সরদার, পিতা-মৃত-গড়াই সরদার এর খেজুর বাগানে অভিযান পরিচালনা করে নিম্নলিখিত অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ ০৫জন ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়ঃ
উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গোলাবারুদ
১। একনলা বন্দুক -০১(এক)টি।
২। এয়ার গান -০১(এক)টি।
৩। শটগানের তাঁজা কার্তুজ -১১(এগার)রাউন্ড।
৪। হাসুয়া -০৪(চার)টি।
৫। মোবাইল ফোন -০৬(ছয়)টি।
৬। সীমকার্ড -১০(দশ)টি।
৭ মেমোরীকার্ড -০৩(তিন)টি।
৮। নগদ -৫৯২/-টাকা।
গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের নাম ও ঠিকানা
১। মোঃ আব্দুল কাদের সরদার(৩৬), পিতা-মোঃ ছবেদ আলী সরদার, সাং-গোবরা, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
২। মোঃ মোশারফ হোসেন(৩৮), পিতা-মোঃ শামসুল রহমান ঢালি, সাং-গোবরা, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
৩। মোঃ শহিদুল্লাহ ৥ খোকন(৩৮), পিতা-আব্দুর রহিম কাদের, সাং-গোবরা, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
৪। মোঃ আমাজাদ সরদার(৪০), পিতা-মৃত-কুদ্দুস সরদার, সাং-গোবরা, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
৫। মোঃ ছায়ফুল্লাহ(৪০), পিতা-মোঃ আকবর আলী সরদার, সাং-গোবরা, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
ধৃত ডাকাতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা খুলনা জেলার কয়রা থানাধীন এলাকায় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।
পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে ডাকাতির প্রস্তুতি মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Sharing is caring!