আবরার হত্যা একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড -ইশা ছাত্র আন্দোলন ফেনী জেলা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত অক্টোবর ১০, ২০১৯
আবরার হত্যা একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড -ইশা ছাত্র আন্দোলন ফেনী জেলা

মুতাসিম বিল্লাহ রাসেল
ফেনী শহর প্রতিনিধি:

আজ ১০ অক্টোবর ১৯’ইং রোজ বৃহঃবার বাদ আছর ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোল ফেনী জেলার উদ্যোগে সংগঠনের সভাপতি মু. আতাউল্লাহ কবীর ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মু. সাঈদুল হক সিরাজীর সঞ্চালনায় বুয়েট বিশ্ব বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন ফেনী জেলার সেক্রেটারি মাও. আবদুর রাজ্জক,

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যা কোন স্বাভাবিক হত্যাকান্ড নয়; বরং এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। দল বেঁধে সময় নিয়ে একজন মানুষকে ঠান্ডা মাথায় পিটিয়ে হত্যা করতে হলে কতটা পিশাচ হতে হয়, তা আমাদের বোধগম্য নয়। এ হত্যাকান্ডে জড়িত খুনীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী জানান।
তিনি আরো বলেন আবরারের বাহিরের ইঞ্জুরির থেকে ভিতরের ইঞ্জুরি যেমন মারাত্মক তদরূপ ভাবে বাংলাদেশের বাহিরের ইঞ্জুরি থেকে ভিতরের ইঞ্জুরি মারত্মক।
এক ইঞ্জুরি আবরারকে হত্যা করেছে অপর ইঞ্জুরি স্বাধীনতা কে হত্যা করবে।
এতে আরো উপস্থিত ছিলেন ফেনী জেলা ইসলামী যুব আন্দোলনের সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. এমরান হোসাইন, ইসলামী আন্দোলনের প্রচার সম্পাদক মাও. আবদুর রহমান ফরহাদ, ইশা ছাত্র আন্দোলনের সহ-সভাপতি মু. শহিদুল ইসলাম,সাংগঠনিক সম্পাদক মুতাসিম বিল্লাহ রাসেল, আলিয়া মাদরাসা বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ আবুরায়হান প্রমুখ।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ।
উক্ত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের মাধ্যমে এদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজ শিক্ষার্থী ও তাদের স্বজনরা ক্যাম্পাসকে অনিরাপদ মনে করছে। এতে অনেক মেধাবীরা উচ্চশিক্ষার জন্য নিজ এলাকা ছেড়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আসতে পরিবার থেকে সাপোর্ট পাবেনা। কারণ, কোন বাবা-মা কখনও চিন্তাও করেন না তার সন্তান উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরে আসুক। সুতরাং শিক্ষাঙ্গণে এই ভীতির সঞ্চার করে বাস্তবিক অর্থে দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে স্থবির করে দিতে চায়। এর দায় কখনো সরকার এড়াতে পারেনা। আমরা আশা করবো, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এধরণের নৃশংস হত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনা হোক।

Sharing is caring!