৭ বছর পর ট্রাংক রোডে বিএনপির নতুন কমিটির শোডাউন

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত অক্টোবর ১৪, ২০১৯
৭ বছর পর ট্রাংক রোডে বিএনপির নতুন কমিটির শোডাউন

নুরুল হুদা মিয়াজী রাসেল
ফেনী শহর প্রতিনিধি:

প্রায় সাত বছর পর ফেনী শহরের ট্রাংক রোডে শোডাউন করেছে নবগঠিত জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। দীর্ঘদিন পর শহরের প্রাণকেন্দ্রে নেতাদের সরব উপস্থিতিতে তৃণমূল কর্মীরাও উজ্জীবিত হয়ে উঠেছেন।
দলীয় সূত্র জানায়, ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর অবরোধের সমর্থনে বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নেয়। একইদিন দুপুরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে বাংলাদেশ দলের সিরিজ জয় উপলক্ষ্যে শহরে মিছিল বের করে আওয়ামীলীগ। ওই সড়কে মিছিলকারিরা গেলে সংঘর্ষ বেধে যায়। ওইদিনের পর থেকে আর ট্রাংক রোডে কর্মসূচী পালন করতে পারেনি তিন মেয়াদে ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটি। নতুন কমিটি গঠনের ১১ দিনের মাথায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচীকে ঘিরে প্রকাশ্য হন নেতারা। আহবায়ক শেখ ফরিদ বাহার ও সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলালের নেতৃত্বাধীন কমিটির প্রথম সমাবেশে ব্যাপক শোডাউন করে নেতাকর্মীরা। যুবদল সভাপতি জাকির হোসেন জসিম, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খোন্দকার ও সাংগঠনিক সম্পাদক নঈম উল্যাহ চৌধুরী বরাত, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি সাইদুর রহমান জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক এসএম কায়সার এলিন, ছাত্রদল সভাপতি সালাহ উদ্দিন মামুন ও সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ আলম মিলনের নেতৃত্বে পৃথক মিছিলে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সমাবেশস্থলে উপস্থিত হন। মাথায় লাল সবুজের পতাকা বেঁধে বুকে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ ও ‘দেশ মাতার মুক্তি চাই’ ফেস্টুন নিয়ে দাঁড়ানো ফেনী সরকারি কলেজে পড়–য়া ছাত্রদল কর্মী সানি মজুমদার সবার নজর কাড়ে। সমাবেশ চলাকালীন সময়ে নেতাকর্মীদের ভীড়ে সড়কের একপাশে যানচলাচল বন্ধ থাকে।
জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলাল ফেনীর সময় কে জানান, বিএনপি আন্দোলনমুখী দল। কর্মসূচী দিয়ে নেতাকর্মীদের ব্যাপক সাড়া মিলেছে। তাদের উপস্থিতি সেটি প্রমাণ করেছে। নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নেমেছে।

Sharing is caring!