August 14, 2020, 9:20 am

প্রিয় সালমান শাহ!

  • এম এস শবনম শাহীন

২১ বছর বয়সে তিনি “কেয়ামত থেকে কেয়ামত” সিনেমার মাধ্যমে চিত্রপাড়ায় প্রবেশ করেন। তিনি হয়তো কখনও ভাবেন নি সিনেমার নামের মতোই সহস্র ভক্তদের মনের গহীনে গেঁথে যাবে কেয়ামত থেকে কেয়ামত পর্যন্ত!

২২ বছর বয়সে তিনি জনপ্রিয়তার ছোঁয়া পেতে থাকেন! সেই সাথে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ থেকে শুরু করে অফিসের বড়বাবু পর্যন্ত সবার কাছেই হয়ে উঠেন উজ্জ্বল এক পরিচিত মুখ। যেন চিরদিনের কত চেনা, যেন কত আপন। নিষ্পাপ এক মুখ অবয়ব।

২৩ বছর বয়সে তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষস্থানে পা রাখেন। একের পর এক রোম্যান্টিক মুভি উপহার দিতে থাকেন ; পাশাপাশি একশন মুভিতেও দারুণভাবে তিনি এক্টিভ ছিলেন! বলা চলে তখনকার সময়টাতে তিনি চিত্রপাড়ায় একচেটিয়া রাজত্ব করেন!! মুখ ফেরানো সিনেমার প্রতি অনাগ্রহ হওয়া মানুষগুলোকে তিনি হলমুখী করেন যার দরুন বাংলাদেশের প্রত্যেকটি সিনেমা হলে রমরমা ব্যবসা শুরু হয়!

২৪ বছর বয়সে তিনি তরুণ প্রজন্মের কাছে হয়ে উঠেন স্টাইল আইকন! শুধু সিনেমা জগত নয়, তিনি বাস্তব জগতেও একজন গ্রেট হিরো ছিলেন। অনেক উদার মন-মানসিকতার মানুষ ছিলেন যার ফলে তরুণরা তাকে আইডল মানত! শত সহস্র তরুণীদের কাছেও ছিল স্বপ্নের রাজকুমার! স্টাইলের দিক থেকে দুচোখ বুজে তাকে সবাই “ফলো” করতো… চিত্রপরিচালকদের কাছে তিনি ছিলেন ফুল-প্যাকেজ! তাকে দিয়ে একদম ন্যাচারাল অভিনয় থেকে শুরু করে সবধরনের অভিনয় করানো খুব সহজেই সম্ভব ছিল। তিনি নিজেই ছিলেন যেন একটা “ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি”!

২৫ বছর বয়সে তিনি আকস্মিকভাবে মৃত্যুবরন করেন ঢাকার ইস্কাটন প্লাজার নিজ বাসায়। অর্থাৎ লাখো-কোটি ভক্তদের কাঁদিয়ে পাড়ি জমান না ফেরার দেশে, পুরো বাংলাদেশ স্তব্ধ! কেউই মেনে নিতে পারছে না যে তাদের স্বপ্নের নায়ক আর তাদের মাঝে বেচে নেই! চলে গেছেন সবাইকে ফাঁকি দিয়ে একদম সীমানার বাইরে!

এত সল্পসময়ে স্বপ্নের নায়কের মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে তখনকার সময়ে নাম না জানা সহ মোট ২১ জন তরুণ-তরুণী আত্বহত্যা করেন! যা বেশকিছু পত্রিকার শিরোনামে উঠে এসেছিল। যা বিশ্বের ইতিহাসে এক বিরল ঘটনা হিসেবে আজো চিহ্নিত।

শুধু তাই নয় ; মৃত্যুর এত বছর পরেও তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষস্থান দখল করে আছেন! যা জীবিত কোন নায়কের এতটা জনপ্রিয়তা নেই! হ্যা, বলছিলাম আমাদের স্বপ্নের নায়ক ; স্টাইলিশ আইকন ; অমর নায়ক ; কোটি ভক্তদের আইডল ; মহানায়ক সালমান শাহ’র কথা যিনি আজো তার অগণিত ভক্তদের মাঝে বেচে আছেন! আমরাও একদিন পৃথিবী থেকে বিদায় নিব ; আমাদের পরে অনেক প্রজন্ম আসবে যাবে! তবুও তিনি বেচে রবে ভক্তদের অন্তরে অন্তরে!

 

 

[আওয়ার বাংলাদেশের মতামত বিভাগে প্রকাশিত যে কোনো লেখার দায় লেখকের নিজের। আওয়ার বাংলাদেশের সম্পাদনা পরিষদ এ লেখার দায় গ্রহণ করে না। তাই এই লেখার জন্য আওয়ার বাংলাদেশের সম্পাদনা পরিষদকে দায়ী করবেন না। মত প্রকাশের স্বাধীনতা হিসেবে আওয়ার বাংলাদেশের সম্পাদনা পরিষদের নীতির সাথে অসামঞ্জস্য লেখাও এখানে প্রকাশ করা হয়ে থাকে। কেবল ধর্ম এবং রাষ্ট্রবিরোধী কোনো লেখা প্রকাশ করা হয় না। চাইলে আপনিও তথ্য বা যুক্তিসমৃদ্ধ লেখা এখানে পাঠাতে পারেন।]

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর

ফেসবুক পেইজ