August 7, 2020, 6:11 pm

কেমন ছিলেন মুহাদ্দিস আহমদ করিম রহ.

  • হোসাইন আহমদ কারীমি

মুহাদ্দিস র. এর জীবনের সব ক্ষেত্রেই ছিলেন অনেক সতর্ক । আপনাদের সামনে শুধু উনার জীবনের একটি বিষয় আলোচনা করতে চাই ।

একদিন মুহাদ্দিস র.বাড়ি থেকে মাদরাসায় যাওয়ার জন্য রিকশায় উঠলেন (যে হেতু শেষ জীবনে মাদ্রাসায় যাওয়ার জন্য মাদ্রাসার পক্ষ থেকে একটি রিকশা দেওয়া হয়েছে তিনি এটা একা ব্যবহার করতেন) আমি ও আব্বাজান র.এর সাথে এক দিন সকাল বেলা মাদরাসায় যাওয়ার জন্য বের হলাম, আব্বাজান র. রিকশায় উঠলেন আমি ও রিকশায় উঠার জন্য প্রস্তুত হলাম এমন সময় আব্বাজান বলে উঠলেন তুমি এই রিকশায় উঠবেনা তুমি অন্য রিকশা করে আস।

অন্য রিকশা করে আমি মাদরাসায় গেলাম, আমি আব্বাজান র.কে প্রশ্ন করলাম আমাকে আপনার সাথে রিকশায় উঠালেন না কেন? দেখেন কেমন বিচক্ষণ এবং আমানত দ্বার ছিলেন মুহাদ্দিস আল্লামা আহমদ করিম র. তিনি আমাকে উত্তর দিয়েছেন বেটা শুন আমি যেই রিকশা ব্যবহার করি এটা শুধু মাদ্রাসা থেকে আমাকে ব্যবহার করার জন্য দিয়েছেন অন্য কারো জন্য নই ।

যদি তোমাকে আমার সাথে রিকশায় উঠাতাম তাহলে মাদ্রাসার পক্ষ থেকে যে আমানত আমাকে দেওয়া হয়েছে তাহার খেয়ানত হয়ে যাবে। কারন কারন রিকশা করে শুধু আমাকে মাদরাসায় আসা যাওয়ার জন্য দেওয়া হয়েছে ।

তিনি আরো বলেন, হাশরের ময়দানে আমি কি জওয়াব দিবো আল্লাহর কাছে ।

পাঠক একটু চিন্তা করুন তো ? কেমন খোদার ভয় থাকলে এমন কাজ করতে পারেন, মাদ্রাসার হক যাতে নষ্ট না হয় সে ব্যাপারে কত সতর্ক ছিলেন তারা। হে আল্লাহ তুমি এ মহান ব্যক্তিদের পথ ও মত কে অনুসরণ করার তাও ফিক দান করুন।

উল্লেখ্য, মুহাদ্দিস আল্লামা আহমদ করিম র. তিনি ছিলেন শাইখুল আরব ওয়াল আজম হোসাইন আহমদ মাদানী রহ. শাগরেদে রশিদ, বৃহত্তম নোওয়াখালির প্রাচিন তম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম আল হোসাইনিয়ার একাদারে নাজেমে তালিমাত, যথাক্রমে সেক্রেটারি, মুহাদ্দিস, এবং জীবনের শেষ পর্যন্ত বোখারীর তথা শাইখে ছানী ছিলেন।

 

লেখক:-

মাওলানা হোসাইন আহমদ কারীমি

সাহেবজাদা, আহমদ করিম রহ.

 

চলবে….

পরবর্তী পর্বের জন্য আওয়ার বাংলাদেশের সাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন…

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর

ফেসবুক পেইজ