ঢাবিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবীতে সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য মানববন্ধন

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত অক্টোবর ৫, ২০১৯
ঢাবিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবীতে সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য মানববন্ধন

ডেস্ক রিপোর্ট:

আজ ৫ অক্টোবর‘১৯ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) কর্তৃক গত ২৬ সেপ্টেম্বর‘১৯ ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের প্রস্তাব গ্রহণের প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য।

ডাকসু কর্তৃক ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের প্রস্তাব অসাংবিধানিক, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ডাকসু গঠনতন্ত্র বিরোধী। ডাকসু গঠনতন্ত্রে এমন কোন ধারা নেই যে ধারানুসারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এই ধরনের বিতর্কিত সিদ্ধান্ত প্রস্তাব করতে পারে।

বাংলাদেশ সংবিধান যেখানে প্রত্যেক নাগরিকের মত প্রকাশ ও রাজনীতি করার অনুমতি প্রদান করে সেখানে ডাকসু কর্তৃক এই ধরনের অসাংবিধানিক প্রস্তাব শুধুমাত্র বাংলাদেশের সংবিধানকেই চ্যালেঞ্জ করে না বরং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে বাংলাদেশের গণমানুষের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেয়।

আপনারা জানেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান বলেই সংবিধান বহির্ভূত কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার এখতিয়ার রাখেনা।

সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য কর্তৃক আয়োজিত মানববন্ধনে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্যের মুখপাত্র শেখ ফজলুল করীম মারুফ উপর্যুক্ত কথা বলেন।

শেখ ফজলুল করীম মারুফ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তচিন্তার উর্বর ভূমি। বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল মত ও পথের মানুষ থাকবে, সবাই যার যার আদর্শ প্রচার করবে এবং তুমুল বুদ্ধিবৃত্তিক তর্ক-বিতর্ক ও দ্বান্দ্বিকতার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা সঠিক ও আগামীর দেশ পরিচালনার আদর্শ খুঁজে পাবে। এটাই বিশ্ববিদ্যালয়ের চিরাচরিত সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য।
কিন্তু উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) একটি আদর্শকে দমিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করে।

আয়োজিত মানববন্ধনে অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেন, ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের নামে ইসলামী রাজনীতি নিষিদ্ধের কোনো অপচেষ্টা করা হলে ছাত্র সমাজ তা কোনোভাবে মেনে নিবেনা।

নেতৃবৃন্দ হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ডাকসু কর্তৃক যে বিতর্কিত ও অসাংবিধানিক প্রস্তাবটি সুপারিশ করা হয়েছে সেটি বাতিল করা না হলে সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য এদেশের সচেতন সকল শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে এই বিতর্কিত সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক ও আইনিভাবে মোকাবেলা করতে বদ্ধপরিকর।
উক্ত মানববন্ধনে ইসলামী ছাত্র খেলাফত বাংলাদেশের সেক্রেটারি আবুল হাসিম শাহী‘র সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী ছাত্র খেলাফত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ খোরশেদ আলম, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি তারেক বিন হাবিব, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র সমাজের সভাপতি মোঃ নুরুজ্জামান, বাংলাদেশ জমিয়তে তালাবায়ে আরাবিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুর রহমান, ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি তোফায়েল গাজ্জালী, খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি জাকির বিল্লাহ, বাংলাদেশ খেলাফত ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি জাকির হোসেনসহ প্রমুখ।

Sharing is caring!