হিজবুত তাওহীদের বিভ্রান্তিতে দিশেহারা জাতি

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ২৬, ২০২০
হিজবুত তাওহীদের বিভ্রান্তিতে দিশেহারা জাতি
  • তাজুল ইসলাম ওসমানী
  • নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি

২০১২ সালে বাংলাদেশ সরকারের প্রশাসন কর্তৃক “জঙ্গি” খেতাবপ্রাপ্ত সংগঠন হিজবুত তাওহীদের নগ্ন পায়ে ধর্মীয় বিষয়ে হস্তক্ষেপ দুঃখ এবং রীতিমত লজ্জাজনক। সংগঠনের সূচনা লগ্ন থেকেই তারা দেশ-জাতি বিশেষ করে ইসলাম মুসলমান এবং আলেম সম্প্রদায় কে যে পরিমাণ কটূক্তি অবমাননা করে আসছে ফেরাকে বাতেলার ইতিহাসে তাহা বিরল।

দীর্ঘ ২৫ বছর যাবত দেশের বিভিন্ন স্থানে তাদের ভ্রান্ত আকিদা প্রচারকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন স্থানে সাধারণ ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের সাথে সংঘর্ষ এবং আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটায়, এক পর্যায়ে বাংলাদেশ সরকার এ সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন।

কিন্তু সরকারি সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে গোপনে ওপেনে তাদের মতবাদ প্রচার করতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় বিগত পাঁচ ছয় মাস পূর্বে তাদের এই মিশন নিয়ে কুমিল্লা থেকে কিছু সংখ্যক কর্মী নোয়াখালী হাতিয়ার জাহাজমারাতে আস্থানা গড়ে।

আলোচনা-পর্যালোচনা ফাঁকফোকরে স্থানীয় কিছু সংখ্যক লোককে তাদের দলে ভেড়াতে সক্ষম হয় যাদের সামাজিক অবস্থান নিতান্তই প্রশ্নবিদ্ধ। বাজার ঘাটে, জনসমাগম স্থানে তাদের ভ্রান্ত মতবাদ আলোচনা করতে থাকে।

এ নিয়ে স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে সংশয়ের শেষ নেই এদিকে সামাজিক আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রেখে বিষয়টিকে সুরাহা করার জন্য স্থানীয় তৌহিদী জনতার মুখপাত্র ইসলামি অন্দলন বাংলাদেশ হাতিয়া দক্ষিণ শাখার সংগ্রামী সভাপতি মুফতি ওসমান গনি জাহাজমারা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ইসহাক সহ স্থানীয় ওলামা পরিষদের কার্যকরী কমিটির সদস্য গন প্রশাসনের সাথে আলোচনা করে।

তবে বিষয়টি দিন দিন অজানা আতঙ্কের দিকে চলছে। জনসাধারণের প্রত্যাশা প্রশাসনের সুচিন্তিত ও কার্যকরী পদক্ষেপ ছাড়া বিষয়টি সুরাহা হবে না

Sharing is caring!