স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুলাই ২৩, ২০২১
স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা
  • আওয়ার বাংলাদেশ ডেস্ক 

স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে না পেরে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে লাইজু আক্তার (৩২) নামে এক গৃহবধূ গাছের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, লাইজু আক্তারের ৯ বছর আগে চরমোন্তাজ ইউপি’র জহিরুল হকের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে করেন। সংসার জীবনে তাদের ঘর আলোকিত করে তিন মেয়ে সন্তান জন্ম নেয়। ছোট মেয়েটি শারীরিক প্রতিবন্ধি (ঠোট কাটা) হয়ে জন্ম নেয়ায় বিচলিত হয়ে পড়েন লাইজু। বন্ধ করে দেয় মেয়েটির খাওয়া-দাওয়া। ফলে জন্মের ১৫ দিন পর মেয়েটি মারা যায়। মেয়ের মৃত্যুর শোকে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন লাইজু। এরপর থেকে বাবার বাড়ি ও স্বামির বাড়িতে যাওয়া আসার মধ্যেই কাটছিল দিন।

লাইজু ভারসাম্যহীন হওয়ায় এক সপ্তাহ আগে গলাচিপা উপজেলাধীন পানপট্টি ইউনিয়নে দ্বিতীয় বিবে করেন লাইজুর স্বামী জহিরুল। স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ের খবর শুনে মধ্যরাতে পরিবারের অগচরে হঠাৎ বাবার বাড়ি থেকে চলে আসেন লাইজু। তাকে দেখতে না পেয়ে পরিবারের লোকজন রাতভর খোঁজাখুঁজি করে। লাইজুর কোনো সন্ধান পায়নি। পরে ভোর রাতে বাইলাবুনিয়া বাজারের কাছে বাবলা গাছে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা।

পুলিশ খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে চরমোন্তাজ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এস আই মোমিনুল হক ঝুলন্ত লাশটি উদ্ধার করেন।

মৃত লাইজু পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের বাইলাবুনিয়া গ্রামের মজিবুল হকের মেয়ে।

রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেওয়ান জগলুল হাসান বলেন, ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। একটি অপমৃত্যুর মামলা হবে।

Sharing is caring!