স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ নিয়ে ফেসবুক লাইভে স্বামী

আওয়ার বাংলাদেশ ডেস্ক ২৪
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২১
স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ নিয়ে ফেসবুক লাইভে স্বামী

ঘাতক নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী আমেনা বেগমকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেন স্বামী নজরুল ইসলাম (৪০)। তবে হত্যা করেই থেমে থাকেননি ঘাতক স্বামী। হত্যার পর তিনি স্ত্রীর লাশ পেছনে রেখে ফেসবুক লাইভে এসে হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেন এবং ঘরে থাকা এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের হুমকি দেন।

স্থানীয় লোকজন ভয়ে ঘাতকের কাছে যেতে সাহস না পেয়ে বিষয়টি পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে কৌশল অবলম্বন করে ঘাতক নজরুলকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামে। ঘাতক নজরুল ইসলাম ওই গ্রামের হোসেন মাদবরের ছেলে।

ডামুড্যা থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে নজরুল ইসলামের সাথে তার স্ত্রী আমেনা বেগমের পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে নজরুল ঘরের দরজা বন্ধ করে কুড়াল দিয়ে এলাপাতাড়ি তার স্ত্রীকে কোপাতে থাকেন। আমেনা বেগমের চিৎকার শুনে বাড়ির লোকজন ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশের চেষ্টা করলে নজরুল ঘরে থাকা এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের হুমকি দেন। এরপর তিনি স্ত্রীর লাশ পেছনে নিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে হত্যার দায় স্বীকার করেন।

খবর পেয়ে ডামুড্যা থানা পুলিশ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর আহমেদ ঘটনাস্থলে গিয়ে কৌশল অবলম্বন করে ঘাতক স্বামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। গ্রেফতারের পর স্থানীয় উত্তেজিত জনতা ঘাতককে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালায় বলে জানা গেছে। পুলিশ উত্তেজিত জনতার হাত থেকে নজরুলকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় এবং লাশ মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয় মোহর আলী বেপারী বলেন, ‘আমেনা বেগম খুব ভালো মানুষ ছিলেন। নজরুল নেশাখোর ও খারাপ লোক। আমরা এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করছি।’

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোসাইরহাট সার্কেল) তানভীর আহমেদ বলেন, স্ত্রীকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ নিয়ে ফেসবুক লাইভে এসেছে এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ভয় দেখাচ্ছেন নজরুল। পরে নানা কৌশলে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। এই বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Sharing is caring!