লকডাউন ভাবনা : পর্ব- ১৩

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত এপ্রিল ১২, ২০২০
লকডাউন ভাবনা : পর্ব- ১৩

মাস্টার সেলিম উদ্দিন রেজা   

বিগত এক, দেড় মাস যাবৎ কারো মুখে হাসি দেখিনি। দুশ্চিন্তা আর অনিশ্চয়তা ভীষণভাবে আমাকে, আপনাকে আমাদের সবাইকে অর্থাৎ পৃথিবীর সব মানুষকে যমের মতো গ্রাস করেছে। তাই আমরা কেউ ভালো নেই। অাসলে ভাল থাকাটা এই মূহুর্তে খুব কঠিন হয়ে পড়েছে। সবাই ভাবছি কখন শেষ হবে করোনা তান্ডব। কখন শেষ হবে লকডাউন নামের বন্দীদশা, কখন আসবে আবার মুক্ত জীবন। কখন সচল হবে আমাদের কাজের ক্ষেত্রগুলি। আর যতই ভাবছি ততই বাড়ছে মানসিক চাপ। বাড়ছে অস্থিরত।
আমাদের অসুস্থতার জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ী কিন্তু এ মানসিক চাপ। মানসিক চাপের কারণে প্রাথমিকভাবে মানুষের মাথা ব্যাথা শুরু হয়। সে সাথে দেখা দিতে পারে জ্বরের উপসর্গ।যা করোনা ভাইরাস আক্রমনের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকাপূর্ণ।

একবার ভাবুনতো, এ মানসিক চাপ বাড়ছে কেন? নিশ্চয় অনিশ্চয়তা বোধ থেকে। ভবিষ্যত চিন্তা থেকে।যত বেশি আমরা ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবছি, ততই বাড়ছে টেনশন।ভবিষ্যত নিয়ে এত অস্থির হয়ে লাভ কি? ভবিষ্যত তো সব সময় অনিশ্চিত। ভবিষ্যত সম্পর্কে আমরা কিছুটা অনুমান করতে পারি মাত্র। তা ও সব সময় সঠিক হয়না। চলুন না এভাবে দুশ্চিন্তাগ্রস্থ না হয়ে, বর্তমান নিয়ে ভাবি।আজও আমি সুস্থ আছি। পরিবার পরিজনের সাথে আছি। ঘরে কিছু খাবার মজুদ আছে। এজন্য অন্তর থেকে বলুন শোকর আলহামদুলিল্লাহ। লকডাউনের কারণে হাতে সময় আছে পর্যাপ্ত। এবাদতে একটু বেশি সময় মগ্ন থাকুন। ভাল কিছু বই পড়ুন। ঘর দোর আঙ্গিনা নিজের হাতে পরিস্কার করুন। বাড়িতে গাছ পালা থাকলে সেগুলোর কাছে কিছুটা সময় কাটান। লাভ করবেন নির্মল এক আনন্দ।আসবে অভাবনীয় প্রশান্তি। এই মূহুর্তে আমাদের সবার সুস্থ থাকাটা খুব জরুরী। সবাই শান্ত থাকুন।সুস্থ থাকুন।যার যার প্রতিবেশি এবং দরিদ্র আত্মীয় স্বজনের খোঁজ রাখুন। মানবিক হোন।সহযোগিতার হাত প্রসারিত করুন।

রাত যত গভীর হয় সকাল তত নিকটে আসে। এ দু:সময় স্থায়ী নয়। অচিরেই কেটে যাবে ইনশাআল্লাহ।
সংকট উত্তোরণের পরবর্তী দিনগুলি হবে আরও সুন্দর। আরও মানবিক। কারণ পৃথিবীর সব ক্ষমতাশালীরা দেখেছে ক্ষমতার বড়াই মিথ্যে আষ্ফালন।ধনীরা দেখেছে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার কত অসহায় একটা ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র অণুজীবের কাছে।

“সন্ধানী চোখ দুটি খুঁজে ফিরে বার বার
কোথা পাব সে সমাজ,যেথা নেই হাহাকার।”

আমি দেখতে পাচ্ছি, হাহাকার মুক্ত সাম্যের এক প্রশান্তিময় মানবিক পৃথিবীর হাতছানি।

“মেঘ দেখে কেউ করিসনে ভয়
আড়ালে তার সূর্য হাসে
হারা শশীর হারা হাসি
অন্ধকারে ফিরে আসে।”

চলবে…..

Sharing is caring!