রাজপথে মমতার শপথ

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯
রাজপথে মমতার শপথ

ডেস্ক রিপোর্ট:

এনআরসি বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না মর্মে রাজপথে শপথ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। আজ মঙ্গলবার কলকাতায় বিতর্কিত নাগরিতক আইন প্রতিবাদে ধারাবাহিক আন্দোলনের দ্বিতীয় দিনের মিছিলে সমাবেশে সবাইকে নিয়ে শপথ বাক্য পাঠ করেন মমতা ব্যানার্জী। এসময় কলকতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও এমপি নুসরাত জাহান এবং মিমি চক্রবর্তী উপস্থিত ছিলেন।

মমতা বলেন, ১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হয়েছিলো। আজ এতো বছর পরে এসে যদি নাগরিক পরীক্ষা দিতে হবে, চারিত্রিক সনদ দিতে, তোমার বাপের নাম কী কোথা থেকে এসেছো? এসব তামাশা চলতে দেয়া হবে না। বাংলায় এনআরসি চলবে  না, চলতে দেয়া হবে না।

শপথে বলা হয়, ‘আমাদের শপথ, আমরা সবাই নাগরিক। সর্ব ধর্ম সমুন্নয়ন আমাদের জীবন ও আদর্শ। কাউকে বাংলা ছাড়তে দেবো না, নিশ্চিন্তে থাকবো। শান্তিতে থাকবো। বাংলায় এনআরসি ও ক্যান করতে দিচ্ছি না তেদবো না দেশ ভাগ হতে দিচ্ছি না দেবো না আমরা ঐক্যবদ্ধ ভারত চাই’।

শপথ শেষে মমতা বলেন, ধর্ম আপনার আপনার দেশটা কিন্তু সবার। সব ধর্ম আপনার আপনার উৎসব কিন্তু সবার। সব ধর্ম আপনার আপনার সর্ব ধর্ম সমুন্নয়ন সবার। সব ধর্ম আপনার আপনার বাংলা কিন্তু সবার।

৭২ বছর পরে এসে নাগরিক পরীক্ষা দিতে হবে কে এদেশের নাগরিক এদেশের নাগরিক নয়। চারিত্রিক সনদ দিতে, তোমার বাপের নাম, মায়ের নাম কী, কী কোথা থেকে এসেছো, তোমার ধর্ম কী? না বন্ধু এটা আমাদের পরিচয় না। আমাদের পরিচয় মানবিকতা। মানবিকতার পরিচয় সভ্যতা।

নাগরিকত্ব বিল পাশের সমালোচনা করে মমতা বলেন, কাউকে জানতে দেয়া হয়নি। দুপুর বেলা বিল এনে বিকেলে পাশ। গায়ের জোরে সবকিছু হয় না, ক্ষমতার জোরে সব কিছু হয় না। আমি বলতে চাই এই আন্দোলন জয়লাভ করবে। সে ই জন্যই শান্তি রক্ষা করতে হবে। এই আন্দোলন তখনই জয়লাভ করবে আন্দোলনের চরিত্রটা শান্তিপূর্ণভাবে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের চরিত্র হবে।

মমতা বলেন, ১৯০৩, ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দে রবিন্দ্রনাথকে ডান্ডা নিয়ে মাঠে নামতে হয়নি। রাখিবন্ধন করে মাঠে নেমেছেন। আপনারাও রাখিবন্ধন করবেন। দরকার হলে মা বোনদের সাথে নিবেন।

একটা কথা মনে রাখবেন, যখন ঝড় আসে সবার রামের গায়েও লাগবে ইমাামের ইমামের গায়েও লাগবে। পানি আসলে আমিও ভেসে যাবো, আপনিও ভেসে যাবেন। আমার পোশাক দেখে চিনতে পারছেন কেউ? এটা কী খারাপ পোাশাক? এটা পোশাক নয়? নাকি টুপি মাথায় দিলেই মনে হয় একটু একটু পোশাক পড়েছে। পাঞ্জাবিরা মাথায় পাগড়ি পড়েনা? খ্রিস্টান ভাইরা কি মাথায় টুপি পড়েনা?

মনে রাখবেন পোশাক যার যার নিজের মতো। খাবার যার যার নিজের মতো। আগুন লাগলে রামের গায়েও লাগবে ইমামের গায়েও লাগবে। বন্যার জল আসলে আপনিও বাঁচবেন না আমিও বাঁচবো না।

 

সুত্র: এমপি নুসরাত জাহান এর টুইটার থেকে……………..

Sharing is caring!