রাজনীতিতে দেওলিয়া রনি’দের শেষ সম্বল ওলামা ও বুদ্ধিজীবিদের গালি

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত এপ্রিল ১, ২০২০
রাজনীতিতে দেওলিয়া রনি’দের শেষ সম্বল ওলামা ও বুদ্ধিজীবিদের গালি

নুরুল ইসলাম হেলাল:

আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বঞ্চিত সাবেক এমপি গোলাম মাওলা রনি বিএনপি-জামাত থেকে মনোনয়ন প্রাপ্তির আশায় আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে টকশো ইত্যাদিতে কিছুদিন টকটক করেও মনোনয়ন না পেয়ে ঢাকা দক্ষিণে সিটি নির্বাচনে স্বতন্ত্রভাবে মেয়র পদে অংশ নেয়৷ নির্বাচনে জামানত হারিয়ে “খালি কলস বাঁজে বেশি” উপাধি নিয়ে কিছুদিন চুপ থাকে।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে পূণরায় মনোনয়ন চেয়ে না পেয়ে বিএনপিতে যোগ দিয়ে জাতীয়তাবাদের চেতনাধারক হয়ে ঐক্যফ্রন্ট এর মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করে৷ নির্বাচনে হেরে গিয়ে কট্টর আওয়ামী বিরুধী হয়ে যায়। তার এসব বিরুধিতা আর টকশোর টকটক শুধুমাত্র মনোনয়নের জন্যেই। গোলাম মাওলা রনিকে আমি মনোনয়ন বঞ্চিত ও মনোনয়ন লোভী সমালোচক হিসেবেই চিনি।

এদেশের মানুষের মধ্যে আগ-পিছ ভাবেন এমন লোক খুব কম৷ আর একটা মানুষের আগ-পিছ সবার জানাও থাকেনা। এই ‘রনি’ সাহেবদের সমালোচনার ভাষা অনেকে বুঝলেও সমালোচনার হেতু সম্পর্কে অনেকে জানেন না। তাই রাজনীতিতে দেওলিয়া এই রনিরা এসব উদ্দেশ্যে প্রনোদিত সমালোচনার মাধ্যমে মানুষের সস্তা জনপ্রিয়তা হাতিয়ে নিতে পারে।

তবে তাদের এই সস্তা জনপ্রিয়তা বেশিদিন টিকে না। অতি দ্রুতই এদের খোলস পড়ে যায়। প্রবাদ আছে, “বেচু আছে বেচুর তালে”

তাই রনিরা সব সময় নিজের তালেই মনোনয়নের খোঁজে চলে। এই ক্ষেত্রে নিষিদ্ধ পল্লীতে যেতে হলেও আপত্তি থাকেনা৷ দরকার শুধু মনোনয়নের জন্য সস্তা জনপ্রিয়তা। এরা ভূয়া রাজনীতিবীদ, এরা ভন্ড, ভ্রষ্ট ও দেওলিয়া।

গোলাম মাওলা রনি’রা কাঠনেতা৷ এদের ‘কল্লা’য় একসময় একেক রকমের চশমা দেখা যায়। সম্প্রতি জামায়াত নেতা আজহারীর প্রশংসা করে দেশের সকল আলেম সমাজকে কাঠমোল্লা বলে রনি সাহেব যে ধৃষ্টতাপুর্ন বক্তব্য দিয়েছেন, মনোনয়নের লোভে বিএনপি-জামায়াতে যোগ দেয়ার ইতিহাসটা আবার স্মরণ হওয়ায় এই বক্তব্যে আলেম সমাজ বিচলিত নন৷ এটাকে আলেম সমাজ “পাগলের প্রলাপ” ছাড়া অন্য কিছু ভাবেন না।

কাজেই যেই আজহারীর প্রশংসায় গোলাম মাওলা রনি অন্য আলেমদের হেয় করেছেন, আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাওয়ার কোন চান্স সামনে আসলে নিজেকে পাক্কা আওয়ামীলীগ সাব্যস্ত করতে গিয়ে সেই আজহারী সাহেবকে শত-কোটি বার কাঠমোল্লা-কাঠমোল্লা যপতেও তার কোন সমস্যা হবেনা।

মনোনয়নের প্রয়োজনে তিনি জামায়াত-বিএনপির চৌদ্দগোষ্ঠিকেও পল্টন বা সোহরাওয়ার্দীতে কাঠমোল্লা বলতে দ্বিধা করবেননা।

লেখক:
নুরুল ইসলাম হেলাল
সম্পাদক,
আওয়ার বাংলাদেশ৷

Sharing is caring!