মেঘনার উত্তাল জলরাশীর স্রোতে পানিবন্ধী পাঁচ শতাধিক মানুষ

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত আগস্ট ৫, ২০২০
মেঘনার উত্তাল জলরাশীর স্রোতে পানিবন্ধী পাঁচ শতাধিক মানুষ

মুহাম্মদ আল আমিন

প্রতিনিধি ভোলা

ভোলার সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়ন এর ১ ও ৩ নং ওয়ার্ডের প্রায় ৫০০ শতাধিক মানুষ এবং অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি পানির উত্তাল জলরাশীর স্রোতে বিলীন হয়ে গেছে হাতে গোনা শত স্বপ্ন। একত বেড়ীবাঁধ এলাকা আবার এমতাবস্থায় তাদের পরিস্থিতি খুবই শঙ্কিত তারা। তারা বলেছ এমনিতেই আমরা ঋণগ্রস্ত, এখন আবার এই দূর্যোগ পরিস্থিতি আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাপনে ভয়ানক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে আমাদেরকে।

স্থানীয় সুত্রে বাসিন্দারা জানায়, আজ বুধবার সকাল আটটা (৫ই আগস্ট”২০) থেকেই বৈরীভাব আবহাওয়া ছিল, দমকা হাওয়াসহ হালকা ঘুড়ি ঘুড়ি বৃষ্টি হয়েছে, কিন্তু পানির এই তীব্রতা আমরা অনুভব করতে পারিনি। তারা আরও জানায়, আমরা মসজিদে আসরের নামাজ শেষে একটু ঘুরতে বেড়িয়েছি, হঠাৎ দেখি নদীতে পানির পরিমাণ স্বাভাবিক এর চেয়ে পাঁচগুন বৃদ্ধি পেয়েছে।

তারা আওয়ার বাংলাদেশ কে জানান, আমরা পানির এই তীব্রতা দেখে বাড়িতে ফিরে এসে দেখি আমাদের ঘরে হাঁটু পরিমাণ পানি! তড়িঘড়ি করে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে ঘরের আংশিক আসবাবপত্র সরিয়ে নেই, আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পানিতে ভিজে নষ্ট হ’য়ে গেছে। বিশেষ করে আমাদের সন্তানদের শিক্ষা উপকরণ, সাটিফিকেট, প্রসংশা পত্র, এডমিড কার্ড সহ দলিল পত্র ও জন্মনিবন্ধন পানির কিছু নষ্ট হয়েছে, কিছু স্রোতে হাড়িয়ে যায়।

আওয়ার বাংলাদেশ কে তাঁরা আরও বলেন, আমরা এই বেড়ীবাঁধ এলাকায় হরহামেশাই পানি, বাতাসও দূর্যোগের সময়ে বাচ্চা পোলাপান নিয়ে শঙ্কিত থাকতে হয়, তারা বলেন, আমরা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তা ও আর্থিক সহযোগিতা কামনা করি এবং সরকারের কাছে আমাদের আবেদন যেন আমাদেরকে পূর্বাসনের ব্যবস্থা করে।

Sharing is caring!