মাসজিদে জামাত: পক্ষে-বিপক্ষে

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত এপ্রিল ২৪, ২০২০
মাসজিদে জামাত: পক্ষে-বিপক্ষে

মুফতি মিসবাহ উদ্দিন: করোনার ভয়াবহতা থেকে বাঁচতে প্ৰথমত ওলামায়ে কেরামের সিদ্ধান্তেই সরকার মসজিদে জমায়েত সীমিত করে ৷ কয়েকদিন অতিবাহিত হলে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য কয়েকজন আলেম মসজিদকে সকলের জন্য উম্মুক্ত করতে সরকারের প্রতি আহবান জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেন ৷ মসজিদ উম্মুক্ত হওয়া না হওয়ার ব্যাপারে উভয় পক্ষেই মান্যবর আলেম রয়েছেন ৷

শুরুতে আমি প্রথম সারির আলেমদের পক্ষেই ছিলাম ৷ বিপরীত পক্ষের আলেমদের দলীল-প্রমাণ, যুক্তি সবগুলো যাচাই-বাছাইয়ের পরেও আমি প্রথম সারিদের পক্ষেই ছিলাম ৷ কারণ আমার নিকটও এই মুহুর্তে মসজিদে গণ জমায়েত না হওয়া সঠিক মনে হয়েছে ৷

কাঁচা বাজার সীমিত সময়ের জন্য খোলা থাকলেও মসজিদে গণজমায়েতের পক্ষে আমি ছিলাম না ৷ লজিক তখনও বিদ্যমান ছিল ৷ কিন্তু এখন দেখছি কাঁচা বাজারে যেভাবে লোকসমাগম হচ্ছে তাতে সোশ্যাল ডিস্টেন্সের ১২টা পার হয়ে ১৩টা আর বাকী নেই ৷ কোন যুক্তিই আর বাকী নেই মসজিদে জমায়েত সীমিত রাখার ৷

মরতে যদি হয় মসজিদেই মরবো বা মসজিদে গিয়েই মরবো ৷ যখন জনসমাগম কোনভাবেই এড়ানো সম্ভব হচ্ছে না তখন কিসের ভিত্তিতে মসজিদে জমায়েত সীমিত হবে? এটা হতেই পারে না ৷

কেউ কেউ এমন মনে করছেন যে, মসজিদকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়ার ফলে যদি করোনাক্রান্ত ভয়াবহ আকার ধারণ করে তখন এর দায়ভার ইসলামের উপর আসবে ৷ নাস্তিক-মুরতাদ ও ইসলাম বিদ্ধেষীরা ইসলামের উপর হামলে পড়বে ৷ তাই এই মুহুর্তে মসজিদকে পূর্বাবস্থায়  ফিরিয়ে না নেওয়াটাই ভালো ৷
এভাবে যারা কথা বলেন তাদেরকে একদিকে ডাবল স্ট্যান্ডার্ড অন্যদিকে ন্যারো মাইন্ডের মনে হয় ৷

মনে রাখতে হবে ইসলাম নিয়ে আপনি যে অসহায়ত্ব বোধ করছেন ইসলাম কিন্তু অসহায় নয় ৷ ইসলাম টিকে থাকবে আপনাকে ছাড়া; কিন্তু ইসলাম ছাড়া আপনি অস্তিত্বহীন, হয়তো আজ নয় কাল ৷

আপনি তাদেরকে ভয় পাচ্ছেন? যাদের চক্ষুর বিষই হলো ইসলাম ৷ ইসলামের বিরুদ্ধে না বলতে পারলে তারা ঠিকমতো ঘুমাতে পারে না ৷ তাদের চোখে পড়ে করোনা পরিস্থিতিতে একজন প্রখ্যাত আলেমেদ্বীনের জানাযায় কতজন লোকের  সমাগম হয়েছে; কিন্তু যাদের সম্পর্ক ইসলামের সাথে নেই তাদের জানাযার ক্ষেত্রে তারা অন্ধ হয়ে যায় ৷

তাদের চোখে পড়ে না যখন  করোনায় মৃতদের  কাফন-দাফনের জন্য কেউ নিজের জীবনের ভয়ে এগিয়ে আসছে না, তখন তাদের চোখের কাঁটা একদল আলেম সমাজ ও মাদরাসার তালিবুল ইলমই মৃতদের কবরস্থ করতে নিজেকে প্রস্তুত রেখেছে ৷

প্রিয় ভাই! ইসলামী হুকুমত যদি থাকতো তাহলে এসব আগাছা কবেই নির্মূল হয়ে যেতো ৷ আর আমরা ইসলামকে করুণার পাত্র বানিয়ে এসব অপদার্থের নিকট দ্বারস্থ হই ৷ আফসোস আমাদের জন্য ৷

পরিশেষে সরকারের নিকট আবেদন, যেহেতু লোকসমাগম এড়াতে আপনার বাহিনী ব্যর্থ  হয়েছে তাই ইমেডিয়েটলি মসজিদকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দিন ৷ তবে সর্বসম্মতিক্রমে ওলামায়ে কেরামের সিদ্ধান্তই এক্সেপ্টেবল ৷
কেননা রমজান চলে এসেছে ৷ আল্লাহর বান্দারা আল্লাহর ঘরে ফিরে যেতে ব্যাকুল হয়ে আছে ৷ হয়তোবা এই রমজানের উসিলায় আল্লাহ আমাদের উপর সন্তুষ্ট হয়ে তাঁর আজাব ও গজব থেকে পরিত্রাণ দান করবেন ৷ আল্লাহুম্মা আমীন ৷

লেখক:
মুফতি মিসবাহ উদ্দিন নাঈম
সিনিয়র শিক্ষক
জামিয়া দারুর রাশাদ, কুমিল্লা।

Sharing is caring!