ভোলায় লঞ্চডুবির ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুলাই ১, ২০২০
ভোলায় লঞ্চডুবির ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন
  • ভোলা জেলা প্রতিনিধি

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশে যখন শোকাবহ অবস্থা বিরাজমান এমতাবস্থায় শতাধিক পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এল বুড়িগঙ্গায় মর্নিং বার্ড লঞ্চডুবির ঘটনায়। প্রায়শই দেখা যায় বুড়িগঙ্গা নদীতে একাধিক লঞ্চ প্রতিযোগীতামূলকভাবে চলছে। এসব ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএ‘র সুষ্ঠু তদারকি না থাকায় এমন ঘটনা এখন নিত্য ঘটছে।

১লা জুলাই (বুধবার) ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ভোলা জেলা উত্তরের সংগ্রামী সভাপতি মুহাম্মদ আবুল হাশেম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন আহমেদ এ-র সঞ্চালনায় সকাল ১১টার দিকে জেলা শহরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা জেলা উত্তরের সেক্রেটারি মাওঃ আতাউর রহমান মোমতাজি।

তিনি লঞ্চডুবিতে হতাহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেন এবং এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

নেতৃদ্বয় বলেন, গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে যে (২৯ই জুন ২০ইং) সকাল পৌনে ৮টার দিকে মর্নিং বার্ড লঞ্চটি অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে মুন্সীগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসে। পথে ফরাশগঞ্জ এলাকায় একটি ডকইয়ার্ড থেকে মেরামত শেষে নদীতে নামানোর সময় ময়ূর-২ নামের লঞ্চের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে ডুবে যায় সেটি। এই ঘটনাকে সাধারণ কোনো দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দিলে চলবে না বরং অসতর্ক হয়ে লঞ্চ নামানোর মাধ্যমে গণহত্যা করা হয়েছে।

আমরা এই ঘটনায় প্রথমত বিআইডব্লিউটিএ চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবি করছি। ডকইয়ার্ড কর্তৃপক্ষকে দ্রুত বিচার আইনের আওতায় শাস্তির দাবি করছি এবং নিহতদের পরিবারকে সর্বোচ্চ ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবী জানাচ্ছি। পাশাপাশি ভবিষ্যতে নৌ দুর্ঘটনা এড়াতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

প্রধান অতিথি আরও বলেন, নৌ-সড়ক ও রেলপথ সুরক্ষা জাতীয় কমিটির তথ্যমতে চার দশকে ৬২৫ টি লঞ্চডুবির ঘটনায় ৪৭৩০ জন সাধারণ মানুষ প্রাণ হাড়ায়,আমরা এরকম ঘটনার পূনরায়বৃত্তি আর চাইনা। আমরা দেখেছি গত (২৯ই জুন) লঞ্চডুবির ঘটনায় ৩৩ জনের মৃত্যু হয় এবং একজন ১২-১৩ ঘন্টা পর উদ্ধারের নামে ৩৩ জনের মৃত্যুর সংবাদকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চলছে, আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা জেলা উত্তরের জয়েন্ট সেক্রেটারি মাও তরিকুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাও ইউসুফ আদনান, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ভোলা উত্তর এর সাংগঠনিক সম্পাদক, সাইফুল ইসলাম, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুহাম্মদ মেহেদী হাসান, অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ ফিরোজ আহমদ, কলেজ সম্পাদক মুহাম্মদ আল আমিন, ছাত্র কল্যাণ সম্পাদক মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান সহ বিভিন্ন শাখা দায়িত্বশীলবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!