ভোলায় ইশা ছাত্র আন্দোলনের ধর্ষক বিরোধী আন্দোলনে পুলিশের বাধা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত অক্টোবর ১, ২০২০
ভোলায় ইশা ছাত্র আন্দোলনের ধর্ষক বিরোধী আন্দোলনে পুলিশের বাধা

মোঃ ইসমাইল, ভোলা জেলা প্রতিনিধি:

অদ্য ১লা অক্টোবর ২০২০ইং রোজ বৃহস্পতিবার,
ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচী হিসেবে ভোলা (উত্তর) জেলায় বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ভোলা উত্তর এর সভাপতি এম আবুল হাশেম ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন এর সঞ্চালনায় বিক্ষোভ মিছিল পূর্বক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের -সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওঃ মিজানুর রহমান।

তিনি বলেন, ধর্ষণ; বাংলাদেশে মহামারি আকার ধারণ করেছে। দীর্ঘদিনের বিচারহীনতার সংস্কৃতির পাশাপাশি ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় দেশব্যাপী যেন ধর্ষণ উৎসব চলছে। এর দায় ভার সম্পূর্ণভাবে এই ফ্যাসিবাদী সরকারের।ভোলা সদরের হাটখোলা জামে মসজিদ চত্বরে দেশব্যাপী অব্যাহত ধর্ষণ ও নারী সহিংসতার প্রতিবাদ এবং ধর্ষকদের দ্রুত বিচার আইনে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন তিনি।

সমাবেশে সভাপতি এম আবুল হাশেম বলেন, ধর্ষকদের বিরুদ্ধে আয়োজিত আন্দোলনে পুলিশের বাধায় প্রমাণ করে এদেশের প্রশাসক ধর্ষকদের পক্ষে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নারী ক্ষমতায়নের মুখরোচক বুলির আড়ালে চলছে নারীর প্রতি সহিংসতা। বর্তমান সরকার আজ নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিতে পরিপূর্ণভাবে ব্যর্থ।শুধু সিলেটের এমসি কলেজ নয় সারা দেশে আজ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অব্যাহত ধর্ষণের মাধ্যমে ধর্ষণের রাজত্ব কায়েম করেছে। এভাবে একটি সমাজ চলতে পারে না । অনতিবিলম্বে ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে কার্যকর করতে হবে। এবং এমসি কলেজ ও খাগড়াছড়িতে উপজাতি ধর্ষণের অভিযুক্ত ধর্ষকদের বিচার নিশ্চিত করতে হবে।
এ সময় সভাপতির বক্তব্যে এম আবুল হাসেম বলেন এ ধরনের ধর্ষকদের বিরুদ্ধে আন্দোলনে পুলিশের বাধা এটাই প্রমাণ করে, এদেশের প্রশাসক ধর্ষকদের পক্ষে রয়েছে।প্রশাসনকে পেশাদারি ভূমিকা রাখতে হবে।

বিক্ষোভ মিছিল পূর্বক সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা উত্তর এর জয়েন্ট সেক্রেটারি মা-ও তরিকুল ইসলাম, এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ইসলামী যুব আন্দোলনের জেলা নেতৃবৃন্দ এবং উপস্থিত ছিলেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ভোলা উত্তর এর জেলা নেতৃবৃন্দ সহ উপজেলা শাখা নেতৃবৃন্দসহ প্রমুখ।

সমাবেশ পরবর্তী একটি বিক্ষোভ মিছিল কালীনাথ রায়ের বাজার জামে মসজিদ থেকে বেড় হলেই পুলিশি বাধার মুখে বিক্ষোভ মিছিল শেষ হয়।

Sharing is caring!