ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ায় দায়ী ইসির নয়

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মার্চ ২, ২০২০
ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ায় দায়ী ইসির নয়

ডেস্ক রিপোর্ট:

‘ভোটার উপস্থিতি বাড়ানো ইসির কাজ নয়। সুষ্ঠু ভোটের আয়োজন করা নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিত না থাকার অনেকগুলো কারণ থাকতে পারে। এজন্য নির্বাচন কমিশন দায়ী নয়।’

আজ সোমবার (২ মার্চ) ভোটার দিবসের র্যালিতে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

সিইসি বলেন, ভোটার উপস্থিতি বাড়ানো ইসির কাজ নয়। সুষ্ঠু ভোটের আয়োজন করা নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। কেন্দ্রে ভোটার আসা কিংবা না আসা পুরোটা নির্ভর করে রাজনৈতিক দলগুলোর ওপর। তবে ভোটাররা যেনো সুষ্ঠু পরিবেশে ভোট দিতে পারে সেটার নিশ্চয়তা ও ভোটারদের নিজ দায়িত্ব সম্পর্কে সজাগ করার জন্য ভোটার দিবস।

নূরুল হুদা বলেন, ইসির ওপরে মানুষের আস্থা নেই বা আছে, এটা নির্ধারিত করে বলার কোনো সুযোগ নেই। ভোটার ভোট দিতে যাবেন, ইসি ভোটের ব্যবস্থাপনা করবেন। ব্যবস্থাপনার দিক থেকে যা যা করণীয়, আমরা সব করেছি, করে থাকি বা থাকবো। রিটার্নিং কর্মকর্তা, প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োগ, এগুলো করে থাকি।

সিইসি আরো বলেন, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে এত বড় একটা নির্বাচন হয়ে গেল, শান্তি-শৃঙ্খলা একেবারেই নিয়ন্ত্রণের মধ্যেই ছিল। এত বড় জায়গায় সামান্য একটু ধাক্কাধাক্কি ছাড়া সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ছিল। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছি আমরা।

প্রতিবেশ দূষণ কমানোর জন্য নির্বাচনের প্রচার নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নূরুল বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে আমরা শুরু করেছি। ২১টি জায়গায় পোস্টার লাগানোর জন্য জায়গা নির্ধারণ করে দিয়েছি। আমরা বলেছি যে, পাড়ায় পাড়ায় মাইক ব্যবহার করা যাবে না। আমরা বলেছি যে, পথসভাও সংকোচিত করতে হবে। এতে কাজ হলে বিধি পরিবর্তন করে এটা প্রয়োগ করবো।

এর আগে সকাল ৯টার দিকে জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে ভোটার দিবস উদযাপন কর্মসূচি উদ্বোধন করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। পরে সংসদ ভবনের সামনে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, কবিতা খানম, নির্বাচন কমিশনের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর এবং ইসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!