বিত্তবান শ্রেণিকে আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনে এগিয়ে আসা উচিত- মেয়র

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ৫, ২০২০
বিত্তবান শ্রেণিকে আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনে এগিয়ে আসা উচিত- মেয়র
  • আলমগীর ইসলামাবাদী
  • চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের উদ্যোগে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় আগ্রাবাদ এক্সেস রোডে সিটি কনভেনশন হলে চালু করা হচ্ছে ২৫০ শয্যার করোনা আইসোলেশন সেন্টার। অন্যদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের উদ্যোগে বড়পোল এলাকার প্রিন্স অব চিটাগাং কমিউনিটি সেন্টারে ১০০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার চালু করা হচ্ছে।

আগামী ১৫ জুনের মধ্যে আইসোলেশন সেন্টার দুটি চালুর পরিকল্পনায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হচ্ছে। আজ ৫ জুন বিকালে সিটি মেয়র আা জ ম নাছির উদ্দীন ও আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন আইসোলেশন সেন্টার দুটির প্রস্তুতি পর্ব পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা ঘুরে ঘুরে সেন্টারের প্রস্তুতি কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন।

মেয়র বলেন, করোনা দুর্যোগের এই সময়ে জনসেবা নিশ্চিত করতে সরকার নানামুখী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে চলেছে। সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতাল অধিগ্রহণ, একের পর এক পরীক্ষা ল্যাব চালুকরণ, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নমুনা সংগ্রহ বুথ খোলার উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হতে হলে সরকারের পাশাপাশি নাগরিকদেরকেও কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে। সমাজের বিত্তবান অগ্রসর শ্রেণিকে জনসেবায় আত্মনিয়োগ করার এখনই শ্রেষ্ঠ সময়। ব্যবসায়ী,সমাজ হিতৈষি ব্যক্তি,প্রতিষ্ঠানকে করোনা আইসোলেশন সেন্টার চালুকরণ,নমুনা বুথ খোলা বা ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে সরকারের সাথে একাত্ম হতে হবে।

এসময় মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম, প্রিন্স চিটাগাং আইসোলেশন সেন্টার চালূকরণ প্রকল্পের উদ্যোক্তা মো. সাজ্জাদ হোসেন, মহররম হোসাইন, জাওইদ চৌধুরী, সাদ শাহরিয়ার,জাহাঙ্গীর আলম, এড. টি আর খান, আওয়ামী লীগ নেতা মামুনুর রশিদ মামুন, নগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, ওয়াহিদুল আলম শিমুল,জাবেদুল আলম সুমন, , তাজ উদ্দিনসহ রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!