বাঁশখালীতে করোনায় মৃতের লাশ দাফনে ইসলামী আন্দোলন, দানেশ ফাউন্ডেশন ও ইসলামী ফাউন্ডেশনের যৌথ টিম

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মে ২৮, ২০২০
বাঁশখালীতে করোনায় মৃতের লাশ দাফনে ইসলামী আন্দোলন, দানেশ ফাউন্ডেশন ও ইসলামী ফাউন্ডেশনের যৌথ টিম

আলমগীর ইসলামাবাদী
(চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি):
বাঁশখালী উপজেলার শেখেরখীলে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া শওকত আলম চৌধুরীর লাশ স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী দাফন করা হয়েছে।

আজ বুধবার সকাল ১০ টার দিকে শেখেরখীলের শওকত আলম চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় কওমী ওলামায়ে কেরাম, ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও দানিশ ফাউন্ডেশন লাশ দাফনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

মাওলানা ইসহাক আল হাকিমের নেতৃত্বে কাফন দাফন টিমে ইসলামী আন্দোলনের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি ও দারুল কারীম মাদরাসার পরিচালক সাংবাদিক শফকত হোসাইন চাটগামী, দানিশ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সরফরাজ মোহাম্মদ আদিল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাওলানা কাজী শাহাব উদ্দীন, মাওলানা সৈয়দুল আলম আশরাফী, দানিশ ফাউন্ডেশনের মাওলানা দলিলুর রহমান, মাওলানা ইসমাইল ও মোহাম্মদ শুয়াইব অংশ নেন।

বাদ আছর শেখেরখীল মোশারফ অালী সিকদার বাড়ী জামে মসজিদ মাঠে নামাজে জানাজা শেষে মরহুমের লাশ মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।

শওকত আলম চৌধুরী শেখেরখীল ৫নং ওয়ার্ড এলাকার মোশারফ আলী সিকদার বাড়ীর সাবেক ইউপি সদস্য মরহুম আমান আলম চৌধুরীর প্রথম পুত্র এবং সাবেক চেয়ারম্যান ফেরদৌস অাহমদ চৌধুরীর জামাতা।

নামাজে জানাজায় শেখেরখীল ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইয়াছিন উপস্থিত থাকলেও প্রশাসনের কেউ লাশ দাফনের সময় উপস্থিত ছিলেন না। দেয়া হয়নি লাশ দাফন টিমকে কোন সহায়তাও। লাশ দাফনকারী টিমকে পিপি থেকে শুরু করে কাপন দাফন সামগ্রী, নানা উপকরণ এবং গাড়িসহ সব ধরণের সাপোর্টিং দেয়ার নিয়ম থাকলেও টিমের সদস্যরা নিজস্ব খরচেই স্পটে গিয়ে লাশ দাফন করেন।

দানেশ ফাউন্ডেশন দাফন টিমকে পিপিইসহ সব উপকরণ সরবরাহ করেছে বলে জানা গেছে৷

Sharing is caring!