ফেনীতে গৃহবধূর অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে চাঁদাবাজি

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত নভেম্বর ১১, ২০১৯

নুরুল হুদা মিয়াজী রাসেল

ফেনী শহর প্রতিনিধি:

সোনাগাজীতে গৃহবধূর অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে মারধর, হুমকি ও চাঁদাবাজির অভিযোগে আমিরাবাদের ইউপি সদস্যসহ ৬ জনের নামে রোববার(১০ নভেম্বর) সকালে মামলা দায়ের করেছেন এক গৃহবধু। আসামিরা হলেন আমিরাবাদ ইউনিয়নের গোড়ামারা গ্রামের শাহাজাহান সাজুর ছেলে মতিউল আলম জামসেদ, সফরপুর গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে ইউপি সদস্য আবদুল হামিদ, নারায়ণ চন্দ্র নাথের ছেলে সুমন নাথ ও নির্মল চন্দ্র শীলের ছেলে সমীর শীল। পুলিশ জানায়, গত ২ নভেম্বর মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের সমপুর গ্রামের শীল বাড়ির এক গৃহবধুকে ঘরে রেখে তার পরিবারের লোকজন নানার বাড়িতে যান। রাতে আসামিরা তার বসতঘরে ঢুকে পরকীয়ার অযুহাত তুলে ওই গৃহবধ‚কে মারধর ও শ্লীলতাহানী করে এবং জোরপূর্বক অশ্লীল ছবি তোলে। ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ছাড়ার হুমকি দিয়ে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করেন আসামিরা। এসময় ঘরের আলমারি ভেঙ্গে ১০ হাজার টাকা, আট আনা ওজনের স্বর্নের চেইন ও ২০ হাজার টাকা মূল্যের মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয় অবিযুক্ত আসামিরা। পর দিন দাবিকৃত চাঁদার ৮০ হাজার টাকা হামিদ মেম্বারকে নগদ প্রদান করেন গৃহবধূ। এরপর আসামিদের অব্যাহত হুমকির কারনে এলাকা ছেড়ে তিনি এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপন করতে বাধ্য হন সেই গৃহবধূ। গৃহবধূ জানান, ঘটনার পর থেকে আসামিরা থানায় মামলা করলে বা কাউকে জানালে অশ্লীল ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়ায় ভয়ে এতদিন মামলা করতে সে সাহস পায়নি। এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আবদুল হামিদ বলেন , ভিডিও তুলে চাঁদা দাবি করে জামশেদ ও তার সহযোগীরা । আমি বিষয়টি মিমাংসা করেছিলাম। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!