পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্ব: নবম শ্রেণির ছাত্র খুন

আওয়ার বাংলাদেশ ডেস্ক ২৪
প্রকাশিত জুলাই ২৮, ২০২১
পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্ব: নবম শ্রেণির ছাত্র খুন

নিজস্ব প্রতিনিধি 

মাগুরায় মোবাইলে পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ছুরিকাঘাতে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে সদর উপজেলার বেরইল পলিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে মাগুরা সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন নিহতের বাবা।

নিহত ছাত্রের নাম কাজী গোলাম রসুল (১৬)। সে বেরইল পলিতা গ্রামের কাজী রওনক হোসেনের ছেলে ও গঙ্গারামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পুলিশ ও নিহতের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে গোলাম রসুল স্থানীয় বাজার থেকে বাড়ির দিকে যাচ্ছিল। বেরইল পলিতা দক্ষিণপাড়ার সড়কে আসামাত্র কয়েক যুবক তাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান।

পরে আহত অবস্থায় গোলাম রসুলকে উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যার হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এনামুল কবীর জানান, হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই ওই কিশোরের মৃত্যু হয়। তিনি জানান, বুকের মধ্যে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করার পর প্রচুর রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহতের বাবা চা–বিক্রেতা কাজী রওনক হোসেনের অভিযোগ, একই এলাকার দশম শ্রেণির এক ছাত্রের সঙ্গে মুঠোফোনে গেম খেলা নিয়ে বিরোধের জেরে তাঁর ছেলেকে খুন করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকার ছয়জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা করেছেন কাজী রওনক হোসেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে দশম শ্রেণির ওই ছাত্রের বাবার মুঠোফোনে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ও তার পরিবারের লোকজন গা ঢাকা দিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জয়নাল আবেদিন প্রথম আলোকে বলেন, মুঠোফোনে ফ্রি ফায়ার, পাবজি গেম খেলাকে কেন্দ্র করে হওয়া বিরোধ থেকে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার বিকেলে পরিবারকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। ছয় আসামির নাম উল্লেখ করে মামলা করেছেন নিহতের বাবা। তবে এখনো এ মামলায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

Sharing is caring!