পাঁচ মাস ধরে বেতন বকেয়া ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের, প্রকল্প হতে দারুল আরকাম মাদ্রাসা বাদ

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মে ১৮, ২০২০
পাঁচ মাস ধরে বেতন বকেয়া ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের, প্রকল্প হতে দারুল আরকাম মাদ্রাসা বাদ

উপ-সম্পাদকীয়:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায়ে ২০১৮ সনে প্রতিষ্ঠিত সারাদেশে প্রত্যেক উপজেলায় দু’টি করে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসা চালু হয়েছিলো৷

কিন্তু প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারী চলাকালে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্প থেকে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসা বাদ দেয়ায় সারাদেশে দুই লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন অনিশ্চিয়তার মুখে পড়েছে।

এসব মাদ্রাসার আলেম শিক্ষক-শিক্ষিকারা দীর্ঘ ৫ মাস যাবত বেতন-ভাতা পাচ্ছে না। লকডাউনের মাঝে ১ হাজার ১০টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষক শিক্ষিকারা পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহার অনিদ্রায় দিন কাটাচ্ছেন। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে দাঁড়িয়েছে যে তারা কারো কাছে হাত পাততেও পারছেন না। আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগে তাদের ভাগ্যে বকেয়া বেতন-বোনাসও জুটছে না।

ইফার একটি সূত্র জানায়, গত ১১ মে পরিকল্পনা কমিশন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রস্তাবিত পাঁচ বছর মেয়াদী ৭তম পর্বে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পে ৩ হাজার ১২৮ কোটি ৪৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। উল্লেখিত প্রকল্প থেকে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসাকে বাদ রাখা হয়েছে। এতে ইফার দারুল আরকাম মাদরাসায় নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মাঝে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নর আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের অধীনে সারাদেশে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। কিন্তু ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত না নিয়েই মসজিদভিত্তিক গণশিক্ষা প্রকল্প থেকে দারুল আরকার মাদরাসা সরিয়ে দেয়া হয়েছে। এসব মাদরাসাগুলো চলার জন্য বিকল্প কোনো ব্যবস্থাও নেয়া হয়নি।

তিনি জানান, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো.আব্দুল্লাহ আশ্বাস দিয়েছেন, দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার কেউ বঞ্চিত হবেন না। তবে এসব অসহায় ক্ষুধার্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের বিকল্প কোনো ব্যবস্থাও দেখছি না।

তিনি বলেন, কি কারণে দারুল আরকাম মাদরাসাকে প্রকল্প থেকে বাদ দেয়া হয়েছে তাও জানি না। বঙ্গবন্ধুর প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনে দায়িত্বরত বর্তমান ডিজির প্রত্যাশিত কার্যক্রম দেখছেন না বলেও আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরী উল্লেখ করেন। তিনি ইফার দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদের বকেয়া বেতন বোনাস ঈদের আগেই পরিশোধ এবং মাদরাসাগুলো চালুর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Sharing is caring!