‘পরমাণু বোমা মেরেও ফিলিস্তিনি জনগণের আকাঙ্ক্ষা স্তব্ধ করা যাবে না’

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মে ২৩, ২০২০
‘পরমাণু বোমা মেরেও ফিলিস্তিনি জনগণের আকাঙ্ক্ষা স্তব্ধ করা যাবে না’

ইরান বলেছে, ফিলিস্তিনি জনগণ তাদের মাতৃভূমিতে (ইসরাইলে) ফিরে যেতে চায় এবং তাদের এই আকাঙ্ক্ষা পরমাণু বোমা মেরেও স্তব্ধ করে দেয়া যাবে না। বিশ্ব কুদস দিবস উপলক্ষে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ গতকাল (শুক্রবার) ইরানের ভেতরে ও বাইরে একসঙ্গে বেশ কয়েকটি বৈঠকে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে দেয়া এক বক্তব্যে একথা বলেন।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিনের নির্যাতিত জনগোষ্ঠীর প্রতি সমর্থন জানানো গোটা মানবজাতির কর্তব্য। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও বিশেষ করে দেশটির বর্তমান প্রশাসনকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সকল অপরাধযজ্ঞের অংশীদার বলে উল্লেখ করেন।

ফিলিস্তিনি জনগণকে বিতাড়িত করে যে অবৈধ ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে তা চিরদিন  টিকে থাকতে পারে না বলে জানান ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইতিহাসের নির্মমতম নির্যাতন চালাচ্ছে ও তাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। ইরান এই অপরাধযজ্ঞের অবসান ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে ফিলিস্তিনি জনগণের পাশে রয়েছে বলে তিনি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

শুক্রবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে তেহরানে কুদস দিবসের মিছিল অনুষ্ঠিত হয়

জারিফ বলেন, যেসব শক্তি ইসরাইলকে টিকিয়ে রেখেছে তারা মহাশক্তিধর নয়। তবে সমস্যা হচ্ছে, গত সাত দশক ধরে মুসলিম শাসকরা ফিলিস্তিনি জাতির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে তাদের পাশে থাকতে ব্যর্থ হয়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীবলেন,  আমরা সবাই জানি ইহুদিবাদী ইসরাইল ও তার প্রধান মিত্র আমেরিকা বলপ্রয়োগ ও সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে ফিলিস্তিনি জনগণকে দমন করে রেখেছে; আর এটি শক্তিমত্তার পরিচায়ক নয় বরং দুর্বলতার বহিঃপ্রকাশ।তিনি ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি পূর্ণ সমর্থন ঘোষণা করার জন্য বিশ্ববাসী বিশেষ করে মুসলিম সরকারগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।#

সুত্র: পার্সটুডে

Sharing is caring!