নোয়াখালীতে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ইসলাম বিদ্বেষী ও অশালীন বক্তব্য প্রত্যাহার, আলেমদের সম্পর্কে মিথ্যা বক্তব্য ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং মাদরাসা বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ নোয়াখালী জেলা।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জেলা শহর মাইজদীর বড় মসজিদ মোড়ে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে তারা চার দফা দাবি সম্বলিত স্মারক লিপি জেলা প্রশাসকের নিকট প্রদান করে।

হেফাজতে ইসলামের নোয়াখালী জেলা আমীর মাওলানা শিব্বির আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- নায়েবে আমীর মাওলানা নিজাম উদ্দিন, মাওলানা ছিদ্দিক আহমদ নোমান, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মাওলানা কবির আহমদ, মাওলানা রুহুল আমিন চৌধুরী প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, মির্জা কাদেরকে অবিলম্বে ওলামা ও ইসলাম বিদ্বেষী বক্তব্য প্রত্যহার, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, বন্ধ মাদরাসাটি খুলে দেওয়া জরুরি। মির্জা কাদের কর্তৃক অশালীন ও ধর্ম বিদ্বেষী বক্তব্য প্রত্যাহার করত তাকে জনতার কাতারে আসতে হবে এবং দায়িত্বশীলের মত বক্তব্য দিতে হবে। সকল আলেমের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় হেফাজতের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অব্যাহত থাকবে এবং আগামীতে আরো কঠোর কর্মসূচী গ্রহণ করা হবে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে উক্ত দাবিতে নোয়াখালী জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত ১০ ফেব্রুয়ারি কোম্পানীগঞ্জে বড় রাজাপুর গ্রামের সিদ্দিকীয়া নূরানী মাদরাসার উদ্যোগে আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ তুলে বক্তা মুফতি ইউনুছ ও ইমরান হোসেন রাজুকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। পরে তারা জামিনে মুক্ত হন। এ ঘটনায় মাহফিলের মঞ্চে মুফতী ইউনুছ আহমদকে লাঞ্জিত, ইসলাম বিদ্বেষী ও অশালীন বক্তব্য প্রদান, মিথ্যা মামলা দিয়ে অযথা হয়রানীর অভিযোগ করেন হেফাজত নেতারা।