ঢাকার ধামরাইয়ে লেবু চাষে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী মীর হোসন

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মে ১৭, ২০২০
ঢাকার ধামরাইয়ে লেবু চাষে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী মীর হোসন

মোঃ জিহাদুল ইসলাম আনসারী

( বিশেষ প্রতিনিধি ঢাকা জেলা)

ঢাকার ধামরাইয়ে স্বল্প পুঁজিতে লেবু চাষ করে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে বেকারত্ত্ব দূর করেছে অনেক যুবক ও হতদরিদ্র কৃষক।

সরকারি ভাবে ছোট-খাটো সমস্যা দূর ও পৃষ্ঠ-পোষকতা পেলে বিদেশে লেবু রফতানী করে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সম্ভব বলে জানালেন লেবু চাষী মীর হোসেন।

ধামরাই উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্যানুসারে, চলতি বছর ধামরাই উপজেলার

বালিয়া, যাদবপুর, গাংগুটিয়া, আমতা, বাইশকান্দা, সোমভাগ, সানোড়া, কুশুরাসহ মোট ১১টি ইউনিয়নে প্রায় ৬২০ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ হচ্ছে।

এলাকার অনেক বেকার যুবকসহ বিভিন্ন পেশার লোকজন ব্যক্তিগত ও বাণিজ্যিক ভাবে,আবার নিজের জমি চাষের পাশাপাশি অন্যের জমি ইজারা নিয়েও স্বল্প পুঁজিতে লাভ জনক ভাবে লেবুচাষ করছেন।

একবার লেবুর চারা লাগিয়ে ৮/১২বছর ফসল পাওযা যায়। বাজারে চাহিদা থাকায় ও ভাল দাম পাওয়ায় দিন দিন ধামরাইতে লেবুচাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। গাছে লেবু ধরা শুরু করলে বছরে প্রায় ১২ বার লেবু সংগ্রহ করা যায়।

কৃষক মীর হোসেন বলেন। করোনার কারনে এবার লেবুর অনেক ভাল দাম পেয়েছি।

এদিকে ধামরাই উপজেলা কৃষি অফিসার। জনাব আরিফুল ইসলাম। আওয়ার বাংলাদেশ ২৪. কে বলন।

চলতি বছর ধামরাইতে প্রায় ৭৫০ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ করা হচ্ছে। আর যার উৎপাদন লক্ষ মাত্রা প্রায় ৮ হাজার মেট্রিকটন। তবে লেবুর সাধারনত মাকড়শা আক্রমণ বেশি করে।

লেবুর লেমন বাটার ফ্লাই, আগামরা রোগ, গ্রীনী রোগ হয়ে থাকে। তবে ধামরাইতে এ ধরনের কোন প্রকার রোগ বালাইয়ের আক্রমণ নেই। অন্য ফসলের চেয়ে লাভ বেশি তাই

কৃষকরা লেবু চাষে বেশি করে ঝুকে পড়েছে। ধামরাইতে যদি সরকারিভাবে লেবু বাজারজাতকরণের ব্যবস্থা থাকতো তবে কৃষকরা আরো বেশি লাভবান হতো। বলে তিনি মনে করেন।

Sharing is caring!