টাংগাইলে বন্যার পানিতে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুলাই ২২, ২০২০
টাংগাইলে বন্যার পানিতে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত
  • মিজামনুর রহমান
  • টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি

বন্যার পানির প্রবল চাপে মারাত্মক ঝুঁকিতে আছে টাংগাইল। পানির নিচে ডুবে আছে প্রায় শতাধিক গ্রাম। এর মধ্যে শুধু নাগরপুর উপজেলাতেই পানির নিচে আছে একাধিক গ্রাম।

পানিবন্দি দুই লাখের বেশি মানুষ অর্ধাহারে অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। দুর্গত এসব এলাকায় নদীর লবণাক্ত পানি ঢুকে খাবার পানির আধারগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে অনেকেই পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

আজ বুধবার নাগরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম ঘুরে দেখা যায় এসব গ্রামের  প্রায় শতভাগ বাড়ি পানির নিচে। কোনও কোনও বাড়িতে দেখা যায় পানি ঘরের চাল ছুঁই ছুঁই করছে। ভাটার সময় পানি কিছুটা কমলেও জোয়ারে তা আবার বেড়ে যাচ্ছে। অনেকেই  প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, গরু, ছাগল, হাঁস নিরাপদ জায়গায় অন্যত্র রেখে আসছেন।

নাগরপুর থানাধীন পাইশানা গ্রামের বাসিন্দা মুহাম্মদ আলমগীর আওয়ার বাংরাদেশকে বলেন, ‘১৯৯৮ সালে বাড়ি করার পর এ পর্যন্ত ৬ বার প্লাবিত হয়েছে। এর কি কোনও স্থায়ী সমাধান নেই, না কি এভাবে ডুবতে থাকবো আমরা?’

নাগরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, ‘এই ইউনিয়নের পানিবন্দি মানুষেরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কোনও সাহায্য সহযোগিতা এখনো আসেনি।’

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনি গতকাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে ভূয়াপুরের তারাইতে ক্ষতিগ্রস্ত যমুনার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ এবং টাঙ্গাইল সদর উপজেলার শহর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি বাঁধগুলি রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

Sharing is caring!