ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে বাবা খুন

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত ডিসেম্বর ২৩, ২০২০
ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে বাবা খুন

ফতুল্লায় সন্ত্রাসীদের মারধর থেকে ছেলেকে উদ্ধার করতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে মজিবুর খন্দকার নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি ফতুল্লার বক্তাবলী ইউনিয়নের চর বয়রাগাদী গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।

নিহতের ছেলে সবুজ খন্দকার জানান, ১৬ ডিসেম্বর সকালে মোটরসাইকেল যোগে বাসায় ফেরার পথে চর বয়রাগাদী ব্রিজের সামনে একই এলাকার আবুল হোসেন,নাসির উদ্দিন, কবির হোসেন, জাকির হোসেন, আমান উল্লাহ, সৈয়দ রিফাত, মোকছেদুল, ফয়সাল, দেলোয়ার, মহসিন, মোহাম্মদ আলী আফজালসহ তাদের বিশাল সন্ত্রাসী বাহিনী আমার পথরোধ করে মারধর করতে থাকে। এসময় সংবাদ পেয়ে আমার বাবা মজিবুর খন্দকার, মামাতো ভাই স্বপন ও মামী ছামিরুন নেছা আমাকে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসে। তখন সন্ত্রাসীরা আমার বাবা, মামাতো ভাই ও মামীকেও এলোপাথারী কোপায়। এতে আমার বাবা হাতে ও পেটে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন। ওই সময় এলাকাবাসী ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে আমাদের সবাইকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে ভর্তি করেন।

তিনি আরো জানান, চিকিৎসা নিয়ে আমরা তিনজন কিছুটা সুস্থ হলেও বুধবার সকালে আমার বাবা মজিবুর খন্দকার ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছি।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, আহত মজিবুর খন্দকার চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যালে মারা গেছেন। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে

Sharing is caring!