ছাত্র রাজনীতি নয় বরং সন্ত্রাসী রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত অক্টোবর ১৩, ২০১৯
ছাত্র রাজনীতি নয় বরং সন্ত্রাসী রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে

মুহাম্মদ ইসমাইল হোসেন:    মাথা ব্যাথা তাই মাথা কেটে ফেলা বুদ্ধিমানের কাজ নয়!বরং কাজ হলো ঔষধ সেবন করা।তাহলে আরোগ্য লাভ করা যাবে। ছাত্র সন্ত্রাসীর কারণে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করাও মাথা কেটে ফেলার মতো।বরং এর সঠিক সমাধান হবে যদি এই সন্ত্রাসীর পেছনে কে বা কারা সহযোগিতা করছে , অর্থ যোগান দিচ্ছে, অস্ত্র দিচ্ছে তাদের কে বের করে আইনের আওতায় এনে যথাযথ বিচার ব্যবস্থা কার্যকর করা। তাহলেই ছাত্র সন্ত্রাসী নির্মূল করা সম্ভব। কেননা, কোন ছাত্র সন্ত্রাসী হয়ে দুনিয়াতে আসেনি।বরং তাদের কে অর্থ দিয়ে একদল লোক তাদের দ্বারা সন্ত্রাসী কার্যক্রম করিয়ে থাকে। ছাত্ররা অবৈধ কাজ করার টাকা পাবে কোথায়? তাদের তো কোনো আয়ের উৎস নেই।পিতা মাতা বা বড় ভাই থাকলে হয়তো পড়া লেখা করার জন্য অর্থ দিয়ে থাকে।তাও আবার সামান্য। নিশ্চয়ই এদের কে একদল লোক টাকার মাধ্যমে লালন পালন করে। ছাত্র রাজনীতি ই এদেশ স্বাধীনের পিছনে বিরাট ভূমিকা রেখেছে।১৯৪৭ দেশ ভাগ,১৯৫২ ভাষা আন্দোলন,১৯৬২শিক্ষা আন্দোলন,১৯৬৬ ছয় দফা আন্দোলন, সর্বোপরি ১৯৭১ স্বাধীনতা আন্দোলনে ছাত্ররাই তো সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করছে। ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করলে তো দেশে অন্যায়ের প্রতিবাদ করার মতো কেউ থাকবে না।হয়তো করা যেতে পারে দেশের প্রতিষ্ঠান গুলোর ক্যাম্পাস থেকে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি উগ্রবাদী সংগঠন কে নিষিদ্ধ করা যেতে পারে। কিন্তু পুরো ছাত্র রাজনীতি নয়। কেননা এদেশে বহু আদর্শবান ছাত্র সংগঠন রয়েছে।যারা চাঁদাবাজি টেন্ডারবাজি কিংবা সন্ত্রাসীর পথে কখনো পা বাড়ায় না এবং ছাত্রদের কে আদর্শবান ছাত্র হিসেবে তাদের জীবন গড়ে তুলতে সহযোগিতা করছে।

Sharing is caring!