চট্টগ্রাম হালিশহর বায়তুল কারীমর মুহতামিম এর ইন্তেকাল

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ২৯, ২০২০
চট্টগ্রাম হালিশহর বায়তুল কারীমর মুহতামিম এর ইন্তেকাল
  • আলমগীর ইসলামাবাদী
  • চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

হযরত মাওলানা ইসমাঈল হোসাইন জিহাদী (রহ.)। তিনি চট্টগ্রামের শোলকবহর মাদরাসার দীর্ঘদিনের মুহতামিম ছিলেন, মাদরাসাটি তিনি বলতে গেলে ঠিক ঝুপড়ি থেকে ওঠিয়ে অট্টালিকায় অট্টালিকায় সাজিয়েছিলেন। পড়াশোনায় চট্টগ্রামে যে কয়েকটি মাদরাসার সুনাম রয়েছে শোলকবহর মাদরাসাটির সুখ্যাতি তাঁর আমল থেকেই।

তিনি মুহতামিম থাকাকালে আমি শোলকহর মাদরাসা দেখতে গিয়েছিলাম। তিনি ছিলেন মহান কর্মবীর মানুষ, সৎ, আমানতদার ও পরহেযগার মানুষ। মাদরাসার কনস্ট্রাকশনের কাজে তিনি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে কায়িক শ্রম দিতেন। তিনি এমন এক পরশপাথর ছিলেন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান যেটি তাঁর হাত লাগতো সেটি সোনায় পরিণত হতো। দিনদিন তরক্কি করতো, পড়ালেখায় সুনাম ছড়িয়ে পড়তো। চট্টগ্রামের হালিশহরস্থ জামিয়া বায়তুল কারীম আল-ইসলামিয়া ছিল তাঁর শেষ কর্মস্থল, আমৃত্যু তিনি এ মাদরাসার মুহতামিম ছিলেন। তিনি এখানেও মাদরাসার প্রভূত উন্নতি করেছিলেন।

তাঁর সবচেয়ে বড় গুণ ছিল সততা। তিনি যেখানে ছিলেন দীর্ঘদিন। প্রতিষ্ঠানগুলোর অর্থ যোগানোয় তাঁর অবদান ছিল পাহাড়সম। তাঁর প্রতি সাধারণ মানুষের বিশ্বস্ততাও ছিল সেই ধরনের। তিনি মাদরাসা থেকে বড়জোর বেতন নিতেন, কিন্তু এ পর্যন্ত তাঁর দ্বারা এক পয়সা দুর্নীতি তো দূরের কথা, অপব্যয়-অপচয় করার অভিযোগও কেউ করতে পারবে না। তিনি ছিলেন বহু কাজের কাজি, মানুষের বিপদে-আপদে দৌড়ে আসতেন। মানুষ ভালবেসে যা দিতো চাইলে চট্টগ্রাম শহরে বাড়ি-গাড়িসহ অসম সম্পদ গড়ে তুলতে পারতেন, কিন্তু তিনি ছিলেন আদতে নির্লোভ, নির্মোহ।

বয়স বেড়ে চলার সঙ্গে সঙ্গে তিনি কিছুটা শিশুদের মতো আচরণ করতেন। আমর পরিচিতি জন যারা তাঁর মুহতামিমাধীন মাদরাসায় পড়ালেখা করেছে তাদের দেখলে একদম বাচ্চাদের মতো ‘বাবা বাবা’ বলে ডাকতেন। তাঁর মাদরাসার কৃতিছাত্রদের দেখলে তাঁর মাঝে কি পরিমাণ ভালো লাগতো বা তাঁদের নিয়ে তিনি কি পরিমাণ গর্ববোধ করতেন তা আল্লাহ ছাড়া কেউ জানেন না। তিনি বলতেন, ‘আমার বেটা তোমাদের ছাড়া আর কে আছে? কিয়ামতের দিন আল্লাহর দরবারে তোদেরকে নিয়েই হাজির হবো, তোদের উসিলায় আমি গোনাহগার আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইবো।’

আল্লাহ হযরতের যাবতীয় ভুল-ত্রুটি ক্ষমা করুন, হাজার হাজার তালেবে ইলমদের মহান খাদেম হিসেবে তাঁকে জান্নাতের আ’লা মকাম দান করুন। আমীন।

Sharing is caring!