চট্টগ্রামে মসজিদে নামাজ পড়া নিয়ে মারামারি, আহত ২

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত এপ্রিল ২৫, ২০২০
চট্টগ্রামে মসজিদে নামাজ পড়া নিয়ে মারামারি, আহত ২

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাবুনগরে নামাজকেন্দ্রিক সরকারি নির্দেশনাকে কেন্দ্র করে মুতাওয়াল্লী এবং সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মাওলানা আতিকুল্লাহ বাবুনগরীর উপর হামলা হয়েছে৷ এতে আহত হয়েছেন ২ জন৷

ফটিকছড়ি উপজেলার বাবুনগরে নামাজে সীমিত আকারে মুসল্লির অংশগ্রহণমূলক সরকারি নির্দেশনাকে কেন্দ্র করে হামলায় মুতওয়াল্লীসহ ২ জন আহত হয়েছে।
আজ ২৪ এপ্রিল বাদ জুমা নাজিরহাট পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের (বোর্ড স্কুল সংলগ্ন) মাওলানা আব্দুর রহিম বাড়ি জামে মসজিদে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এতে অনেকে আঘাতপ্রাপ্ত হলেও গুরুতর আহত হয়েছেন মসজিদের মুতওয়াল্লী মাওলানা আলাউদ্দীন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম উত্তরজেলা সভাপতি, গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাতপাখা মার্কার এমপি পদপ্রার্থী জননেতা মাওলানা আতিক উল্লাহ বাবুনগরী।

যেভাবে ঘটনার সূত্রপাত:
চলমান মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাচতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক ওয়াক্তিয়া নামাজের জামাতে ৫ জন ও জুমার জামাতে ১০ জনের অংশগ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। নির্দেশনার আলোকে ফটিকছড়ি উপজেলা কর্মকর্তা প্রতিটি মসজিদের মুতওয়াল্লী বরাবর নোটিশ প্রেরণ করেন।

মাওলানা আতিকুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, গতকাল মুতওয়াল্লীর পক্ষ থেকে এই নোটিশ পড়ে মুসল্লিদের শুনিয়ে দেয়া হলে ৫ জন কারা থাকবে তা নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। আমি পূর্ব পাড়া ও পশ্চিম পাড়া থেকে ৫ জন ঠিক করে দিলে তারা (পূর্ব পাড়ার লোকজন) তা অমান্য করে চলে যায়।

একি বিষয়ে আজকে জুমার নামাজে জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমাদের ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন আসলে আমি তার সাথে কথা বলছি এমন সময়ে হঠাত করে কিছু উচ্ছৃঙ্খল লোকজন মুতওয়াল্লীর উপর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ি লাঠি ও ইট দিয়ে হামলা করে রক্তাক্ত করে।

আমি তাদের নিবৃত করতে এগিয়ে গেলে তারা আমার উপরও একি কায়দায় হামলা করে। এতে আমি আর আলাউদ্দীন গুরুতর আহত হলেও আমাদের পশ্চিম পাড়ার আরো অনেকে আঘাতপ্রাপ্ত হন।

হামলাকারীরা হচ্ছে, নাছির (৩০) পিতা: তৈয়ব, আনিস (২০) পিতা: বাহাদুর, মারুফ (১৯) পিতা: জানে আলম, আব্দুল হালিম (৩৫) পিতা: আবুল বশর, মুবীন (২০) পিতা: লোকমান প্রকাশ মানিক, মাসুদ (২২) পিতা: নূর হোসেন প্রকাশ গুন্নি মানা, তারেক (২২) পিতা:মৃত মির আহমদ, সাজেদ (২০) পিতা: আজম।

হামলাকারীদের উপযুক্ত বিচার চেয়ে মাওলানা আতিকউল্লাহ আজ বিকাল ৫ টায় এ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার নিকঠ এ বিষয়ে অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন।
এদিকে বিষয়ে জানতে চাইলে নাজিরহাট পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইসমাইলকে ফোন করা হলে তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

মসজিদের মুতওয়াল্লী এবং জননেতা মাওলানা আতিকুল্লাহ বাবুনগরীর উপর পরিকল্পিত হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ফটিকছড়ি উপজেলা, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ও ভূজপুর থানার নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন।

নেতৃবৃন্দ অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তার পূর্বক আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন। অন্যথায় সৃষ্ট ঘটনাকে কেন্দ্র করে কোন ধরণের সামাজিক বিচ্ছৃংখলা সৃষ্টি হলে তার জন্য স্থানীয় প্রশাসন দায়ী হবে বলে জানান তারা।

Sharing is caring!