গণপরিবহনের ভাড়া ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিয়ে কাদের-রিজভীর পাল্টাপাল্টি বক্তব্য

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ২, ২০২০
গণপরিবহনের ভাড়া ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিয়ে কাদের-রিজভীর পাল্টাপাল্টি বক্তব্য

করোনা গোটা বিশ্বকে বদলে দিলেও বিএনপির ‘নেতিবাচক ও দায়িত্বহীন’ রাজনীতিকে বদলাতে পারেনি- এমন মন্তব‌্য করেছেন বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বিএনপির উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, “তারা রাজনীতির আইসোলেশনে পৌঁছে গেছে। বিষোদগার ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি কারও ভালো কাজ দেখতে পারে না। তাদের মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে নেতিবাচকতার সংক্রমণ।“

আজ (মঙ্গলবার) রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারির বাসভবন থেকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সকালে মন্ত্রী বলেন, অর্ধেক বা তার চেয়েও কম যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিবহন চালানোয় মালিক সমিতি ও শ্রমিক সংগঠনের সবাইকে ধন্যবাদ দেন তিনি।

সংক্রমণ প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সচেতনতার প্রাচীর নির্মাণের আহ্বান জানিয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনা যাত্রী-মালিক-শ্রমিক আলাদা করে চিনবে না, ছাড় দেবে না। তাই নিজেদের স্বার্থেই প্রত্যেকের সচেতনতা জরুরি। তবে যাত্রী সাধারন বর্ধিত ভাড়া আদায়কে তাদের দুর্দিনে একটা বাড়তি চাপ হিসেবেই দেখছেন।

সিন্ডিকেটের কাছেই আত্মসমর্পণ করেছে সরকার: রিজভী

ওদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, সরকার গণপরিবহনের সিন্ডিকেটের কাছেই আত্মসমর্পণ করেছে।

আজ দুপুরে এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, “আসলে সরকার দুর্যোগ, মহামারি, দুর্ভিক্ষ এবং জনসাধারণের জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তা দিতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। সরকার যা কিছু করছে, তা নিজেদের সিন্ডিকেটের স্বার্থকে রক্ষা করতে। তারা জনস্বার্থে সফল নয়, কিন্তু দুষ্কর্মের সাথী হতে খুবই দক্ষ।“

জনগণের জীবনের কথা চিন্তা না করে সরকার ‘শুধুমাত্র জীবিকার অজুহাতে সব কিছু খুলে দিয়ে অপরাধীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে- এমন মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, বাসে ৬০ শতাংশ ভাড়া নেওয়ার কথা থাকলেও কোথাও কোথাও ৮০ শতাংশ অথবা এরও বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এগুলো সরকারের সীমাহীন ব্যর্থতারই নির্দশন। তারা শুধুমাত্র বিরোধী দল-মতকে নিষ্পেষণ ও নির্যাতনের সক্ষমতা অর্জন করেছে।’

এ সময় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ মনে করেন, করোনার মত একটি জাতীয় সংকটকে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায়ই মোকাবেলা করা দরকার।

Sharing is caring!