গণধর্ষণের পর যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে হত্যা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জানুয়ারি ৮, ২০২১
গণধর্ষণের পর যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে হত্যা

ভারতে গণধর্ষণের পর এক নারীর যৌনাঙ্গে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছিল লোহার রড। ভেঙে দেয়া হয় তার পাঁজর ও পা। আর এ অপরাধের মূলহোতা ছিল সত্যনারায়ণ। অভিযুক্ত স্থানীয় মন্দিরের প্রধান পুরোহিত।

বৃহস্পতিবার উত্তর প্রদেশের বদায়ুঁতে গণধর্ষণ ও নৃশংস খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত পুরোহিত সত্যনারায়ণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর আগে বুধবার সত্যনারায়ণের দুই সাগরেদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের জেরা করেই সত্যনারায়ণের নাগাল পায় তারা।

জানা যায়, উত্তরপ্রদেশের বদায়ুঁ জেলার উঘৈতি থানা এলাকায় স্থানীয় এক মন্দিরে পূজা দিতে গিয়েছিলেন নির্যাতিতা ওই নারী। তারপর আর বাড়ি ফেরেননি। রোববার মধ্যরাতে রাস্তার পাশ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। ধর্ষকদল তাকে গাড়ি থেকে রাস্তার পাশে ফেলে চলে যায়। ওই অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলেও প্রচুর রক্তপাতে তার মৃত্যু হয়।

মঙ্গলবার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পর জানা যায়, ধর্ষণের পর ওই নারীর যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে দিয়েছিল ধর্ষকেরা। যার ফলে রক্তক্ষরণ হয়ে তার মৃত্যু হয়। এমনকি ভারি বস্তু দিয়ে নির্যাতিতার বুকেও আঘাত করায় তার পাঁজরের হাড় ভেঙ্গে যায়। নির্যাতিতার একটি পা ভেঙ্গে দেয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, নারীর অবস্থা দেখে প্রথমে চন্দৌসিতে তাকে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যান অভিযুক্তরা। কিন্তু পরে অবস্থা বেগতিক দেখে ওই এলাকায় নির্যাতিতাকে ফেলে দিয়ে চলে যায়।
সূত্র : আনন্দবাজার

Sharing is caring!