কিস্তি নিতে এসে তিন এনজিওকর্মী আটক

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মার্চ ২৫, ২০২০
কিস্তি নিতে এসে তিন এনজিওকর্মী আটক

আওয়ার বাংলাদেশ: ঠাকুরগাঁওয়ে জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ঋণের কিস্তি তুলতে গিয়ে আটক হয়েছেন ৩ জন এনজিও কর্মী। পরে তাদের ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের নিকট সোপর্দ করা হলে সেখানে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পায় তারা।

বুধবার সকালে ও দুপুরে সদর উপজেলা পৌরসভার হাজীপাড়া ও গোয়াল পাড়ায় দরিদ্র ব্যাক্তিদের কাছ থেকে ঋণের কিস্তি উত্তোলন করছিলেন এনজিও কর্মীরা। এসময় স্থানীয়রা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুনকে মুঠোফোনে এ সংবাদ দিলে সাথে সাথে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে এনজিও কর্মীদের আটক করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সোপর্দ করেন।

আটককৃতরা করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কিস্তি আদায় করবে না মর্মে লিখিত অঙ্গীকার করলে তাদের কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম তাদের সতর্ক করে ছেড়ে দেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফেসবুকে ঘোষণা দেন, এলাকায় কেউ কিস্তি আদায় করতে গেলে প্রশাসনকে খবর দেয়ার জন্য।

আটককৃত এক এনজিও কর্মী জানান, তিনি নিজের ইচ্ছায় কিস্তি আদায় করতে যান নাই। অফিসের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে বাধ্য হয়েই  কিস্তি আদায় করতে গিয়েছিলেন।

জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, করোনার কারণে এ দূর্যোগকালীন সময়ে মানুষ এমনিতে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তারপর আবার এনজিওগুলোর কিস্তির চাপে তাদের জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কেউ যেন কিস্তি আদায় না করা হয় এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট এনজিওদের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করে সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সে নির্দেশনা অমান্য করে কয়েকটি এনজিও। প্রথপ পর্যায়ে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু এরপরও পরবর্তীতে কোন এনজিও কিস্তি আদায়ের চেষ্টা করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সুত্র: কে কে

Sharing is caring!