কালিহাতী উপজেলায় প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করবে যে গাড়ি

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ১১, ২০২০
কালিহাতী উপজেলায় প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করবে যে গাড়ি

মোঃ ইসমাইল সিরাজী (বিশেষ প্রতিনিধি)

করোনাভাইরাস সংক্রমণকালে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে সেবা দেয়া, নমুনা সংগ্রহ করা এবং করোনা ওয়ার্ডে নিয়মিত রাউন্ড দেয়ার জন্য বিশেষ এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কিনা তা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিতে কাউকে আর হাসপাতালে যেতে হবে না। খবর দিলে নমুনা সংগ্রহের বিশেষায়িত গাড়ি চলে যাবে রোগীর বাড়িতে। নমুনা নিয়ে তা পাঠিয়ে দেয়া হবে পরীক্ষার জন্য। ঘরে বসেই মানুষ জানতে পারবে করোনাভাইরাসে হয়েছে কিনা। বিশেষ এ গাড়ির মাধ্যমে প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা যাবে।
এতে করে কালিহাতী হাসপাতাল দেশের উপজেলা হাসপাতালগুলোর মধ্যে চিকিৎসায় রোল মডেল হয়ে উঠেছে।
বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহের এই বিশেষায়িত গাড়ি তৈরির পরিকল্পনা ও উদ্যোগ নিয়েছে কালিহাতী উপজেলা প্রশাসন।
ব্যাটারিচালিত একটি ইজিবাইককে বিশেষভাবে নমুনা সংগ্রহের জন্য রূপান্তর করা হয়েছে। এর ভেতরে বসে নিরাপদে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
স্থানীয়ভাবে এই গাড়ি তৈরি করতে খরচ হয়েছে প্রায় তিন লাখ টাকা। এ কাজে অর্থ দিয়েছে উপজেলা পরিষদ। ইতোমধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানে গাড়িটি নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু করেছে।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় এমপি হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উদ্বোধনের সময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনসার আলী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ শামীম আরা নিপা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ সাইদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
উদ্বোধনের পর উপজেলার বাঘুটিয়া এলাকায় চলে যায় করোনা সংগ্রহের বিশেষায়িত গাড়ি। সেখানে কয়েকজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
ওই গাড়িতে নমুনা সংগ্রহ করতে যাওয়া কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টেকনোলজিস্ট আনিসুর রহমান জানান, বিশেষায়িত গাড়িটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যে, এটার ভিতর থেকে ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই) না পড়েই নমুনা সংগ্রহের কাজ করা যায়। গাড়িটির চারিদিকে কাঁচে ঘেরা। বাতাস চলাচলেরও সুযোগ নেই। হ্যান্ড গ্লোভসের ভিতর দিয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
করোনার বিশেষ ব্যবস্থা সম্পর্কে কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নিপা জানান, কালিহাতীতে প্রথম যে রোগী করোনায় আক্রান্ত হন তিনি তার আগে এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন। এটা নিশ্চিত হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। তখন স্বাস্থ্যসেবা মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হয়। তারপরেই গবেশনা সুরু করা হয় যে, কিভাবে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা যায়। এ নিয়ে অনেক ভাবনার পর বিশেষায়িত গাড়ির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।
তিনি জানান, দক্ষিণ কোরিয়া ও ভারতের চিকিৎসা ব্যবস্থার আদলে এ কারটি তৈরি করে কারের মাধ্যমে প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা যাবে।
নমুনা পরীক্ষা করতে আসা মোঃ শিপন মিয়া জানান, গাড়ির ভেতর থেকে নমুনা নেয়া হল। এটা খুব ভালো মনে হলো।
কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইদুর রহমান জানান, বিশেষ এ ব্যবস্থার কারণে চিকিৎসক ও রোগী নিরাপদ থাকবে। রোগীদের স্পর্শ ছাড়াই একজন চিকিৎসক সেবা দিতে পারবেন।

Sharing is caring!