করোনায় দেশ থেমে গেলেও থেমে যায়নি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের কর্মীরা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ৯, ২০২০
করোনায় দেশ থেমে গেলেও থেমে যায়নি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের কর্মীরা

মোঃ ইসমাইল সিরাজী

বিশেষ প্রতিনিধিঃ-

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মুহতারাম আমীর হযরত পীর সাহেব চরমোনাই তথা কেন্দ্রের নির্দেশে করোনা ভাইরাস জনিত পরিস্থিতিতে সারাদেশে আর্ত-মানবতার সেবায় ব্যাপক কাজের আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছেন নেতাকর্মীরা।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ,পটুয়াখালী জেলা শাখার সম্মানিত সেক্রেটারি জনাব আর, আই, এম অহিদুজ্জামান বলেন;- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, পটুয়াখালী জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ বসে থাকেনি দেশের এই কঠিন মুহূর্তে। গত তিন মাসে পটুয়াখালী জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ যে মূল কার্যক্রম গুলো পরিচালনা করেছেন তা নিম্নরূপঃ-

১. মাস্ক বিতরণ ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা।

২. জনসচেতনতার লক্ষে লিপলেট তৈরী ও বিতরণ।

৩. অসহায় মানুষকে খাদ্যসামগ্রী প্রদান (জেলা থেকে তীর্ণমূল পর্যন্ত)।

৪. জানাযা ও দাফন-কাফন টিম গঠন ও প্রশিক্ষণ।

৫. মোবাইলে স্বাস্থ্য বিষয়ক পরামর্শের জন্য ৩ জন এমবিবিএস ডাক্তারের সমন্বয়ে প্যানেল গঠন।

৬. পবিত্র রমজানে ইফতার সামগ্রী বিতরণ।

৭. ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঈদসামগ্রী বিতরণ।

৮. সেচ্ছায় কৃষকদের ধান কেটে বাড়ী পৌছানো।

৯. প্রকাশ করতে না পারা কিছু মানুষকে গোপনে সহযোগীতা করা।

১০.প্রশাসনের আহবানে করোনায় মৃত্যব্যক্তির লাশ দাফন-কাফনের কাজ অব্যাহত রাখা।

১১. করোনা ভাইরাস নামক গজব থেকে পরিত্রাণের লক্ষে কোরআন তেলাওয়াত,তাওবা ইসতিগফার,
দোয়া,দূরুদ,তাসবীহ,তাহলীল সহ বিভিন্ন আমলের তালকীন দেয়া ইত্যাদি।

তিনি বলেন;- পটুয়াখালী জেলা সেক্রেটারি হিসেবে শারীরিক অসুস্থতা ব্যাতীত আলসেমি করিনি আলহামদুলিল্লাহ্‌। অন্তত সাংগঠনিক পর্যায়ে যোগাযোগ করে মানুষের খোজ নেয়ার চেষ্টা করেছি।

তিনি আরও বলেন;- এ মহৎ কাজে যারা বিভিন্নভাবে সহযোগীতা করেছেন তাদের কে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক মোবারকবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি আল্লাহর নিকট উত্তম পুরস্কারের প্রার্থনা করছি।

আমি সকল ভাইদের বলবো, আল্লাহর রহমত নাযিল না হলে দেশ আরও সংকটের মধ্যে পড়তে পারে। সবাই মানুষের পাশে দাড়ান, মানবতার খেদমত করেন।

আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেফাজত করুন,আমীন।

Sharing is caring!