করোনাভাইরাস; এক দিনেই হোম কোয়ারেন্টাইনে ২১৫ জন।

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত মার্চ ১২, ২০২০
করোনাভাইরাস; এক দিনেই হোম কোয়ারেন্টাইনে ২১৫ জন।

ডেস্ক রিপোর্ট:

বাংলাদেশে তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছিল রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট (আইইডিসিআর)। নতুন করে পরিক্ষায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত (কভিড-১৯) আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজনের শরীরে এই ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েনি। তারা সুস্থ বলে জানিয়েছে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। । তাদের যেকোনো সময় হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হবে।

বিশ্বে প্রায় ১২৩ টি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। আর এর মধ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রবাসী বাংলীরা দেশে ফিরেছেন। কিন্তু তাদের কারোর কারোর শরীরে করোনা থাকায়, করোনা ভাইরাস বাঙ্গলাদেশে প্রবেশ করেছে ‘করোনাভাইরাসের জীবাণু থাকতে পারে’ এমন আশঙ্কায় দেশের ১৭টি জেলায় বিদেশফেরত দুই শতাধিক ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

তবে এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত কারও শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল গুলোতে আজ স্বর্দি-কাশি ও জ্বরের রোগী ছিল অনেক।

মানিকগঞ্জে ৭৯, নারায়ণগঞ্জে ৪০, মাদারীপুরে ৩০, কিশোরগঞ্জে ৩৪, ফেনীতে নয়, নোয়াখালীতে এক, যশোরে ছয়, বগুড়ায় দুই, নরসিংদীতে দুই, খুলনায় এক, সিলেটে এক, ফরিদপুরে তিন, জামালপুরে এক, রাজবাড়ীতে দুই, ঝিনাইদহে দুই, চুয়াডাঙ্গায় এক এবং দিনাজপুরে একজন রয়েছেন যাদের হোম কোয়ান্টাইন এ রাখা হয়েছে।

জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীরা হোম কোয়ারেন্টাইনের প্রধান পর্যবেক্ষক হিসেবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক তাদের স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেয়া হয়।  প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য অনুযায়ী ১৭ জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা ব্যক্তির সংখ্যা ২১৫ জন।

Sharing is caring!