ঐক্যবদ্ধভাবে অভিন্ন শত্রু করোনা মোকাবিলায় কাজ করতে হবে: কাদের

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ৭, ২০২০
ঐক্যবদ্ধভাবে অভিন্ন শত্রু করোনা মোকাবিলায় কাজ করতে হবে: কাদের

বাংলাদেশে মহামারী করোনা প্রতিরোধে দল-মতনির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন,আসুন, বিভেদের ভাইরাসে জাতিকে বিভ্রান্ত না করি। রাজনীতির সময় এটা নয়। রাজনীতি করার অনেক সময় আছে।

ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে আজ (রোববার) তার সরকারি বাসভবন থেকে ব্রিফিংয়ে এ আহ্বান জানান সরকারি দলের সাধারণ সম্পাদক। এর আগে সকালে তিনি দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ।

এ সময় ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে গোটা জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ। তিনি সংকটে সাহসী ও সফল একজন রাষ্ট্রনায়ক। সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে অভিন্ন শত্রু করোনা মোকাবিলায় কাজ করতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন,  যারা ৭ মার্চ ও ৭ জুন পালন করে না, তাদের স্বাধীনতার চেতনা এবং মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে বিশ্বাস নেই। তিনি বলেন, মুজিব শতবর্ষে এবারের ৭ জুনের তাৎপর্য অনেক গভীর। তবে করোনার এই পরিস্থিতিতে এবারের ৬ দফা দিবস ভিন্ন প্রেক্ষাপটে পালিত হচ্ছে ।

উল্লেখ্য, তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর শোষণ ও বৈষম্যর প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ মুজিবর রহমান ১৯৬৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি লাহোরে  ছয় দফা দাবি পেশ করেন। এ ছয় দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে ১৯৬৬ সালের ৭ জুন আওয়ামী লীগের ডাকে পূর্ব বাংলায় হরতাল চলাকালে পুলিশ ও ইপিআর’র গুলিতে  ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে কয়েকজন মিছিলকারী শহীদ হন।

ওবায়দুল কাদের ৬ দফাকে বাঙালির মুক্তির সনদ উল্লেখ করে বলেন, ৬ দফা  থেকে পরবর্তীতে ১১ দফার আন্দোলনের ফলে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় বন্দি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কারামুক্তি ঘটে। ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে শেখ মুজিবকে বঙ্গবন্ধু উপাধিতে ভূষিত করা হয়। এই ৬ দফাই ছিল স্বাধিকার সংগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক।

Sharing is caring!