এক সফল প্রতিনিধি দম্পত্তির গল্প

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত জুন ২১, ২০২১
এক সফল প্রতিনিধি দম্পত্তির গল্প
  • মুহাম্মদ মিযানুর রহমান

প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে। কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। যে ব্যক্তি এসব প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাবেন তিনিই হবেন সফল। আজ এমনই একজন সমাজ সেবক ও সফল প্রতিনিধি দাম্পত্য নিয়ে কথা বলব। যারা অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা ডিঙ্গিয়ে সফল হন ইউপি সদস্য হিসেবে । উন্নয়নে মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন প্রতিনিধি এই দম্পতি ।সফলতার রাজপথ থেকে মানুষ নির্বাচিত করেছেন প্রায় এক যুগ ধরে । সাথে সাথে সহধর্মিনী এলাকার উন্নয়নে কাজ কাজ করতে যাচ্ছেন দ্বিতীয়বারের মতো দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে।

 

সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন এই দম্পতি । তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে। তিনি, তাঁর পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছাশক্তি, একাগ্রতা আর প্রতিভার সমন্বয়ে সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য, স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিক ও সুচারুভাবে বাস্তবায়নের জন্য, সর্বোপরি শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের যে স্বপ্ন রয়েছে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে পিরোজপুরের নাজিরপুর সাত নং সেখমাটিয়া ইউনিয়নের তিন নং ওয়ার্ডের তিনি হলেন সেই রূপকার।
সকলের সহযোগিতা পাচ্ছেন এবং সহযোগিতার আশাও ব্যক্ত করে চলেছেন।

 

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে দলের ভাবমূর্তির উন্নয়ন হয়েছে। অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজ ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সমাজসেবী সফল মেম্বার বাবুল খান ।

প্রহসনের সহযোগিতার জন্য এলাকার খেদমতে নিজেকে অর্পণ করে দিয়েছেন সহধর্মিনী রিক্তা খান‌ও।

নির্বাচনকালীন সময়ে সাধারণ জনগনকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করে একজন সফল ও জনপ্রিয় মেম্বার হিসেবে সবশ্রেনীর মানুষের অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন মেম্বার বাবুল খান। তিনি এলাকার গরীব দুঃখী মানুষের পাশে থেকে তিনি সব সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সর্বোপরি গরীব মেহনতী মানুষের প্রকৃত জনদরদী হিসেবে তিনি এলাকায় ব্যাপক পরিচিত ও জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। সামাজিক সচেতনতা এবং মানবিক সেবার অনন্য উদ্যোগ তাকে একজন মানবদরদী ও মহতী মানুষের উচ্চতায় অধিষ্ঠিত করেছে। তিনি এলাকার দরিদ্র জনগোষ্টির উন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন এবং বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন

তিনি এ পর্যন্ত বিভিন্ন রাস্তার উন্নয়নসহ স্কুল,মাদ্রাসা,কবরস্থান,মসজিদ,ঈদগাঁমাঠ সংস্কার করে গরীব দু:খী মানুষের মাঝে বয়স্কভাতা,বিধবাভাতা সঠিকভাবে বিতরণ করেছেন এবং বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করে গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে তার রঘুনাথপুর বাসীকে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে যাচ্ছেন। সাথে সাথে সজাগ থাকছেন মাদক ,সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ।মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথায় তিনি ও তার বাস্তবায়ন করতে চান তার এলাকায় জিরো টলারেন্স নীতি ।স্বজনপ্রীতির ব্যাপারেও সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার আশ্বাস দেন এলাকাবাসীকে। সর্বোপরি এলাকার এমন একজন প্রতিনিধি দম্পত্তিকে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে পেয়ে সকলেই যারপরনাই খুশি। সফল হোক এই প্রতিনিধির দাম্পত্যির উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। তৃতীয় বারের মতো মেম্বার নির্বাচিত হ‌ওয়ায় র‌ইলো অফুরান্ত শুভেচ্ছা ও শুভকামনা।

Sharing is caring!