আ.লীগকে রাজনীতি করার অধিকার দিয়েছিলেন জিয়া : মির্জা আব্বাস

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত ডিসেম্বর ৩, ২০২১
আ.লীগকে রাজনীতি করার অধিকার দিয়েছিলেন জিয়া : মির্জা আব্বাস

আওয়ার বাংলাদেশ ডেস্ক: বিএন‌পির স্থায়ী ক‌মি‌টির সদস্য মির্জা আব্বাস ব‌লে‌ছেন, আগে আওয়ামী লীগ ছিল না, ছিল বাকশাল। সেই বাকশাল বিদায় করে এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তন করেন জিয়াউর রহমান। তিনি আওয়ামী লীগের রেজিস্ট্রেশন দিয়েছিলেন, রাজনীতি করার অধিকার দিয়েছিলেন। দেশে বহুদলীয় রাজনীতি কায়েম করেছিলেন তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। অথচ তার মুক্তির জন্য আন্দোলন করতে হচ্ছে। চিকিৎসার অধিকারের জন্য আন্দোলন করতে হচ্ছে, কী আজব দেশ।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) বিকে‌লে ব‌রিশাল জিলা স্কুল মা‌ঠে বিএন‌পি চেয়ারপারসন বেগম খা‌লেদা জিয়ার মু‌ক্তি ও বি‌দে‌শে সু‌চি‌কিৎসার দাবি‌তে বিভাগীয় সমা‌বে‌শে প্রধান অতিথির বক্ত‌ব্যে তিনি এসব কথা ব‌লেন।

মির্জা আব্বাস বলেন, খালেদা জিয়াকে বিষ প্রয়োগ করা হয়েছে। বি‌দে‌শে চি‌কিৎসার জন্য নেওয়া হ‌লে সেটা প্রমাণ হ‌য়ে যা‌বে। এ জন্যই সরকার খা‌লেদা জিয়া‌কে চি‌কিৎসার জন্য বি‌দে‌শে নিতে দি‌চ্ছে না।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি যখন গ্রেফতার ছিলেন তখন কার মুখ থেকে প্রথম আপনার মুক্তির দাবি উঠেছিল; স্মরণ করে দেখুন। বারবার বেগম খালেদা জিয়া আপনার মুক্তির দাবি তুলেছিলেন। আর আজকে আপনি তাকে মুক্তি দিচ্ছেন না, আটকে রাখছেন। একটি অমানবিক প্রতিদান দিচ্ছেন আপনি। একজন বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী একটু ভালো ব্যবহার আশা করে। কিন্তু আপনি কোনো ভালো ব্যবহার করছেন না।

মির্জা আব্বাস বলেন, এই ভূখণ্ড কাউকে ইজারা দেইনি। মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। স্বাধীন মাটিতে যারা আমাদের কথা বলার অধিকার দিতে চান না, আমাদের চিকিৎসার অধিকার দিতে চান না-আপনারা কারা? কোথায় ছিলেন আপনারা?

তিনি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, যদি সাহস থাকে ভোটের মাঠে আসুন, পুলিশ প্রশাসন বাদ দেন। কিসের ভয় আপনাদের? এতই যদি জনসমর্থন থাকে তাহলে আপনাদের ভয় কিসের?

বরিশাল মহানগর বিএন‌পির আহ্বায়ক ম‌নিরুজ্জামান ফারু‌খের সভাপ‌তি‌ত্বে সমা‌বেশে আরও বক্তব্য দেন বিএন‌পির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যা‌রিস্টার শাহজাহান ওমর (বীর‌ উত্তম), যুগ্ম মহাস‌চিব অ্যাডভোকেট ম‌জিবর রহমান স‌রওয়ার, ব‌রিশাল বিভাগীয় সাংগঠ‌নিক সম্পাদক বিল‌কিস আক্তার জাহান শি‌রিণ প্রমুখ।

নাউখাঁ/আবা২৪

Sharing is caring!