আসামে কার্ফু ভেঙে রাজপথে বিক্ষোভ করছে জনতা

আওয়ার বাংলাদেশ
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
আসামে কার্ফু ভেঙে রাজপথে বিক্ষোভ করছে জনতা

ডেস্ক রিপোর্ট:

ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) পাস হয়েছে। এ নিয়ে উত্তাল হয়ে পড়েছে আসাম ও ত্রিপুরা। এদিকে, আসামে কার্ফু ভেঙে রাস্তায় নেমে এসেছে হাজারো জনতা। বিক্ষোভ থামাতে আশ্বাস দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। টুইট করেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীও। এতেও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) নিয়ে বিক্ষোভ থামানো যাচ্ছে না আসামে। বরং কার্ফু ভেঙেই এবার গুয়াহাটির রাস্তায় নেমে এলেন সাধারণ মানুষ। নিরাপত্তাবাহিনীর উপস্থিতিতেই জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভ করছেন তাঁরা। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে চলছে স্লোগানও।

গতকালই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে জ্বলে উঠেছিল আসাম। কোনও সংগঠন ছাড়া সাধারণ মানুষ এবং ছাত্ররাই রাস্তায় নেমে এসেছিলেন সেই সময়। তবে এদিন আন্দোলনকারীদের পাশে দাঁড়িয়েছে অল আসাম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (আসু) এবং কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতি (কেএমএসএস)। সাধারণ মানুষকে ঘর ছেড়ে রাস্তায় নামার আর্জি জানিয়েছে তারা।

আজ বৃহস্পতিবার আসুর পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে। বেলা ১১টায় গুয়াহাটির লতাশিল ময়দানে জমায়েত রয়েছে। তার জন্য সকলকে ঘর ছেড়ে রাস্তায় নামার আর্জি জানাচ্ছি আমরা।’

এমন পরিস্থিতিতে এয়ার ইন্ডিয়া, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট, ভিস্তারা, গো এয়ার-সহ বেশ কিছু সংস্থা আসাম বিমানবন্দর থেকে তাদের একাধিক বিমানের উড্ডয়ন বাতিল করেছে। বাতিল করা হয়েছে বেশ কিছু বিমানের অবনমনও।

এয়ারপোর্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়ার উত্তর-পূর্ব শাখার একজিকিউটিভ ডিরেক্টর সঞ্জীব জিন্দল বলেন, ডিব্রুগড়ে ৯টি বিমানের উড্ডয়ন বাতিল করা হয়েছে। বিমানবন্দর সংলগ্ন এলাকায় কোনও ট্যাক্সিও পাওয়া যাচ্ছে না। এর ফলে গতকাল যাঁরা বিমানবন্দরে পৌঁছেছিলেন, তাঁরা এখনও আটকে রয়েছেন।

এ ছাড়াও এয়ার ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে কলকাতা থেকে ডিব্রুগড়গামী একটি বিমান বাতিল করা হয়েছে। গুয়াহাটি এবং ডিব্রুগড় থেকে দু’টি বিমানের উড্ডয়ন বাতিল করেছে ভিস্তারা। ইন্ডিগো, স্পাইসজেট এবং গো এয়ারের পক্ষ থেকেও একাধিক বিমান বাতিল করা হয়েছে। আবার উড্ডয়নের সময়সূচিও বদলেছে একাধিক বিমানের। ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত গুয়াহাটি, ডিব্রুগড় এবং যোরহাটগামী এবং সেখান থেকে যত বিমান বাতিল হবে, সেই বাবদ ভাড়ার টাকা যাত্রীদের ফেরত দেওয়া হবে বলে স্পাইসজেট এবং গো এয়ারের তরফে ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে।

এদিকে, গতকাল ডিব্রুগড়ের ছাবুয়ার একটি রেল স্টেশন চত্বরে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। তিনসুকিয়ার পানিতোলা স্টেশন চত্বরেও আগুন ধরানো হয়। এরপর এদিন আসামে সমস্ত লোকাল ট্রেন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

 

সূত্র : আনন্দবাজার

Sharing is caring!